ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৭, জানুয়ারি ২০১৯ ২৩:৪৩:০৫ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
শিরোনাম
সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে `জিরো টলারেন্স` : প্রধানমন্ত্রী জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর নামে ফেসবুক খুলে প্রতারণা, গ্রেফতার ৫ পরীক্ষায় নকল রোধে আসছে আধুনিক প্রযুক্তি অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন থেরেসা মে বঙ্গমাতা আন্তর্জাতিক নারী ফুটবলের স্পন্সর ‘কে-স্পোর্টস’ জাতিসংঘের এক-তৃতীয়াংশ নারীকর্মী যৌন হয়রানির শিকার মুসলিম উম্মাহকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সংরক্ষিত আসনে ত্যাগী-রাজপথে সক্রিয়দের প্রাধান্য : কাদের জমতে শুরু করেছে বাণিজ্যমেলা, ছাড়ের ছড়াছড়ি

আজ আন্তর্জাতিক মেয়েশিশু দিবস : বিশ্বব্যাপী মেয়েদের বিজয় অভিযাত্রা

অনলাইন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪.কম

আপডেট: ১১:৫৪ পিএম, ১৫ অক্টোবর ২০১৮ সোমবার

ফটো ক্যাপশন: আর্ন্তজাতিক মেয়ে দিবস উদযাপনের অংশ হিসেবে ‘গার্লস টেকওভার’-এ বাংলাদেশের  লতা (১৬) ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশনের কান্ট্রি ম্যানেজারের (বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান) দায়িত্ব প্রতীকি ভাবে গ্রহণ করেন।

ফটো ক্যাপশন: আর্ন্তজাতিক মেয়ে দিবস উদযাপনের অংশ হিসেবে ‘গার্লস টেকওভার’-এ বাংলাদেশের লতা (১৬) ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশনের কান্ট্রি ম্যানেজারের (বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান) দায়িত্ব প্রতীকি ভাবে গ্রহণ করেন।

আজ ১১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক মেয়েশিশু দিবস। সারা বিশ্বজুড়ে জাতিসংঘের অন্তর্ভূক্ত রাষ্ট্রসমূহ প্রতিবছর ১১ অক্টোবর দিবসটি পালন করে। এই দিবসকে মেয়েদের দিনও বলা হয়। দিবসটির এ বছরের প্রতিপাদ্য ‘উইথ হার : অ্যা স্কিলড গালর্স ফোর্স।’

 

২০১২ সালের ১১ অক্টোবর প্রথম এই দিবস পালন করা হয়। লিংগ বৈষম্য দূর করা এই দিবসের অন্যতম প্রধান উদ্দেশ্য। অন্যান্য উল্লেখযোগ্য ক্ষেত্রগুলো হল শিক্ষার অধিকার, পরিপুষ্টি, আইনী সহায়তা ও ন্যায় অধিকার, চিকিৎসা সুবিধা, ও বৈষম্য থেকে সুরক্ষা, নারীর বিরুদ্ধে হিংসা ও বলপূর্বক তথা বাল্যবিবাহ।

 

বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালের পৃষ্ঠ-পোষকতাতে একটি প্রকল্প রূপে আন্তর্জাতিক মেয়েশিশু দিবসের জন্ম হয়েছিল। প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল "কারণ আমি একজন মেয়ে" (Because I Am a Girl) নামক আন্দোলনের ফলশ্রুতিতে এই দিবসর ধারণা জাগ্রত হয়। এই আন্দোলনের মূল কার্যসূচি হল গোটা বিশ্বজুড়ে কন্যার পরিপুষ্টি সম্পর্কে জন সচেতনতা বৃদ্ধি করা। এই সংস্থার কানাডার কর্মচারিরা সকলে এই আন্দোলনকে বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠা করতে কানাডা সরকারের সহায়তা নেযন।

 

পরে জাতিসংঘের সাধারণ সভায় কানাডা আন্তর্জাতিক  মেয়েশিশু দিবস উদযাপনের প্রস্তাব করে। ২০১১ সালের ১৯ ডিসেম্বর এই প্রস্তাব জাতিসংঘের সাধারণ সভায় গৃহীত হয়। পরে ২০১২ সালের ১১ অক্টোবর প্রথম আন্তর্জাতিক মেয়েশিশু দিবস পালন করা হয়।

 

এরই অংশ হিসেবে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে ‘গার্লস টেকওভার’-উদযাপনের সাফল্যজনক অধ্যায়ের তৃতীয় বছরে এসে ‘এল সালভাদর থেকে শুরু করে বাংলাদেশ পর্যন্ত এক হাজারের বেশি মেয়েশিশুর সমতার দাবীতে বিশ্বের ৬০টি দেশে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ যেমন প্রেসিডেন্ট, মেয়র, কর্পোরেটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং প্রধান শিক্ষকসহ আরো বিভিন্ন পদে সাময়িক সময়ের জন্য প্রতীকিভাবে কর্তৃত্ব গ্রহণ করে মেয়েশিশুরাই।

 

আর্ন্তজাতিক মেয়ে দিবসকে কেন্দ্র করে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বিশ্বব্যাপী এই আয়োজনের মাধ্যমে মেয়েদের এগিয়ে যাওয়ার পথে যে বিষয়গুলো বাঁধা হয়ে দাড়ায় সেগুলোকে নিশ্চিহ্ন করে দেয়ার জন্য একটি সামাজিক ও রাজনৈতিক বিপ্লব গড়ে তোলার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

 

‘গার্লস টেকওভার’-এর এবারের আয়োজনে বাংলাদেশে ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশন-এর কান্ট্রি ম্যানেজার (বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান), বরগুনা মিউনিসিপ্যালটি কর্পোরেশনের মেয়র, পটুয়াখালি চেম্বার অব কর্মাস-এর প্রেসিডেন্ট এবং ভোলার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়্যাম্যান তাদের নিজ নিজ এলাকার মেয়েশিশুদের কাছে প্রতীকি ক্ষমতা হস্তান্তরের মধ্য দিয়ে প্রমান করেন, বাংলাদেশের প্রভাবশালী নেতৃবৃন্দরাও মেয়েশিশুদের জীবনের ইতিবাচক পরিবর্তনে এবং তাদের ক্ষমতায়নে তাদের পাশে আছেন।

 

‘গালর্স টেকওভার’-এর অংশ হিসেবে লতা (১৬), ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স কর্পোরেশনের কান্ট্রি ম্যানেজারের (বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান) পদে প্রতীকিভাবে ক্ষমতা গ্রহণ করেন। 

 

অভিজ্ঞতার কথা জানাতে গিয়ে লতা বলেন, যদি সমান সুযোগ দেয়া হয় তাহলে একটি মেয়েশিশুও ছেলেশিশুদেও মতোই সমান সাফল্য অর্জনে পারদর্শী।

 

একই সাথে আইএফসি-এর কান্ট্রি ম্যানেজার ওয়েন্ডি ওয়ার্নার বাংলাদেশসহ বিশ্বের সকল দেশে মেয়েশিশু ও নারীদের জন্য সুযোগ সৃষ্টির জন্য প্রতিজ্ঞা ব্যক্ত করেন।

 

এদিকে পটুয়াখালী চেম্বার অফ কর্মাসের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মহিউদ্দিনের প্রতিকী দায়িত্ব গ্রহণ করেন  তাসনিম (১৭)। পটুয়াখালী চেম্বার অব কর্মাসের ৪৫ বছরের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো নারী প্রেসিডেন্ট পদে দায়িত্ব নেয়।

 

ক্ষমতা গ্রহণের পর বোর্ড ডিরেক্টরদের সাথে এক সভায় তারা কিভাবে যুবনারীদের একজন নারী উদ্যোক্তা হতে সহায়তা করতে পারেন সে বিষয়ে আলোচনা করেন তাসনিম।

 

পটুয়াখালী চেম্বার অব কর্মাসের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মহিউদ্দিন পটুয়াখালীতে নারীদের ব্যবসায়ী উদোক্তা হিসেবে গড়ে ওঠা এবং সাফল্য অর্জনের ক্ষেত্রে সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি দেন।

 

অন্যদিকে, ভোলায় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের প্রতীকি দায়িত্ব পালন করেন ১৩ বছরের কিশোরী সুমাইয়া। দায়িত্ব বুঝে নেয়ার পর সুমাইয়া ’যৌন নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির’ সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভায় শিশু বিবাহ ও যৌন নির্যাতন প্রতিরোধে একটি রেজুলেশনের খসড়া প্রণয়ন করেন। 

 

সুমাইয়া বলেন, এই প্রতীকি ক্ষমতা গ্রহণের মাধ্যমে আমার আত্মবিশ্বাস আরো বেড়ে গেছে। এই আত্মবিশ্বাস একদিন আমাকে এই ধরনের নেতৃস্থানীয় পদে দায়িত্ব পালনে সাহায্য করবে।   

 

পাশাপাশি বরগুনা মিউনিসিপ্যালটির মেয়রের দায়িত্ব নেন আজনোভা (১৫)। দায়িত্ব নেয়ার পর আজনোভা  মিউনিসিপ্যালটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর, অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দসহ সুশীল সমাজের সদস্যদের উপস্থিতিতে এক সভায় সভাপতিত্ব করেন।

 

আজনোভা বরগুনা শহরকে মেয়েশিশু ও নারীদের জন্য নিরাপদ শহর হিসেবে গড়ে তুলতে সকলের অংশগ্রহণ এবং সহায়তা কামনা করেন।

 

বরগুনা মিউনিসিপ্যালটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন বরগুনা শহরে সকল প্রকার নারী নির্যাতন, যৌন নির্যাতন এবং শিশু বিয়ে প্রতিরোধে সহায়তা করার প্রতিশ্রুতি দেন।

 

এদিকে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর অরলা মারফি বলেন, এই গালর্স টেকওভারের মধ্য দিয়ে প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল সরকারের প্রতি মেয়েশিশু ও নারীর প্রতি সকল প্রকারের নির্যাতন, বৈষম্য এবং অবিচারের বিরুদ্ধে জোরালো পদক্ষেপ নিতে আহবান জানাচ্ছে। এই পদক্ষেপ পরিবার থেকে শুরু করে রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান ও প্রচার মাধ্যমসহ সকল স্তরে গ্রহণ করতে হবে।

 

তিনি বলেন, মেয়েশিশুরা অবশ্যই নিজেদের উন্নয়নের জন্য প্রয়োজনীয় পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দিতে পারে। কিন্তু তাদের প্রতি সহযোগিতার হাত প্রসারিত করা প্রয়োজন।

 

অরলা মারফি আরো বলেন, এক্ষেত্রে সরকার, সুশীল সমাজ, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান, মা-বাবা, নারী, পুরুষ ছেলেশিশুসহ সকলে মিলে চিহ্নিত করতে হবে জেন্ডার বৈষম্য কি, কেন হয় এবং এটি দূর করতে তাদের ভূমিকা কি হতে পারে, কিভাবে তারা এটি দূর করতে পারে।”

 

এদিকে দিবসটি উপলক্ষে আর্ন্তজাতিক পর্যায়ে, সেনেগালের প্রধানমন্ত্রী, উগান্ডার ভাইস-প্রেসিডেন্ট, গুগল, ফেসবুক ও স্পোটিফাইসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক কর্পোরেট হাউজের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ, ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের সিইও, ফিনল্যান্ডের বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক মন্ত্রী এবং ভিয়েতনামের জাতীয় পরিষদ ‘গার্লস টেকওভার-২০১৮’-এ অংশগ্রহণ করেন।