ঢাকা, মঙ্গলবার ১৭, সেপ্টেম্বর ২০১৯ ২০:১১:৫৬ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
বিমানের যাত্রীদের আস্থা অর্জন করুন: প্রধানমন্ত্রী ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী সরকারি কেনাকাটায় সতর্ক হতে বললেন প্রধানমন্ত্রী ভিকারুননিসায় ফওজিয়ার যোগদানে বাধা নেই কোটি টাকা চাঁদা দিয়েছি, পারলে প্রমাণ করুক: জাবি ভিসি জাবি ভিসির দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়

এই আতর দোকানের ক্রেতা ছিলেন রবী ঠাকুর   

অনলাইন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০১:০৬ এএম, ১৩ জুন ২০১৯ বৃহস্পতিবার

কোলাহলময় কোলকাতা শহর। চারদিকে মম করছে সুগন্ধ৷ নাখোদা মসজিদ সংলগ্ন জাকারিয়া স্ট্রিট৷ প্রাচীন নগরী কলকাতার আতর সাম্রাজ্য আটকে গিয়েছে এই অঞ্চলে। যেখানে আলাদা করে জায়গা করে নিয়েছে খুদা বক্স ও নবি বক্স পারফিউমার্স৷ ১৮২৪ সালে তৈরি এই দোকানে একসময় আতরের খদ্দের ছিলেন রবীন্দ্রনাথ, নেতাজি থেকে পাকিস্তানের প্রথম প্রধানমন্ত্রী লিয়াকত আলি খান, নবাব ওয়াজিদ আলি শাহ৷

একসময় নবাবদের মহল থেকে বাঙালি বনেদি বাড়িতে আতরের চল ছিল৷ ঋতু বদলের সঙ্গে আতরের সংগ্রহ বদলাতেন গন্ধবিলাসীরা৷ তবে এ শহরে আতরের ব্যবহার বাড়ে লখনউর নির্বাসিত নবাব ওয়াজেদ আলি শাহ কলকাতায় আসার পর থেকেই ৷ ১৮৫৬ সালে নবাব ওয়াজেদ আলি কলকাতায় এসেছিলেন৷ কিন্তু তাঁর আগেই অর্থাৎ ১৮২৪ সালে খুদা বক্স ও তাঁর ছেলে নবি বক্স কনৌজের কারখানা থেকে সুগন্ধি নিয়ে আসেন কলকাতায়৷

রাস্তায় তেমন আলোর ব্যবস্থা না থাকায় ভোর পাঁচটা থেকে শুরু হত বেচা-কেনা৷ সন্ধ্যের মধ্যে বন্ধ হয়ে যেত দোকান৷ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, মৌলানা আবুল কালাম আজাদ, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, পাকিস্তানের প্রথম প্রধানমন্ত্রী লিয়াকত আলি খান, প্রয়াত রাজ্যপাল নুরুল হাসান, নবাব ওয়াজিদ আলি শাহ ও পরে তাংর বংশধরদের আতরের বরাত পেতেন খুদা বক্স৷

খুদা বক্স ও নবি বক্স পারফিউমার্সের নবম বংশধর নেয়াজউদ্দিন আল্লা বক্স ও সফিকুদ্দিন আল্লা বক্স বলেন, “আমরা শুনেছি রবীন্দ্রনাথের গোলাপ আর জুঁইয়ের গন্ধ৷তখন এ শহরেও আতর তৈরি হত৷বেঙ্গল কেমিক্যালসের উল্টো দিকে ফুলে বাগিচা ছিল৷ সেখানকার ফুল দিয়ে অনেক আতর তৈরি হয়েছে৷এখন মুম্বই, কনৌজ থেকেই আতর আসে৷”

তাঁদের কথায়, “দামি আতরের বিক্রি এখন খুবই কম৷এখন মূলত ৫০-১০০ টাকার আতরের চাহিদাই বেশি৷এগুলো সব সিন্থেটিক আতর৷আসল আতরের অনেক দাম৷ খাস আতর তৈরিতে চন্দন তেল লাগে৷ যা এখন দুর্মূল্য৷ ১০ গ্রাম আসল আতরের নূন্যতম দাম হাজার টাকার মতো৷ চার-পাঁচ হাজার টাকারও আতর আছে৷”

 ১৪১ বছরের আরও এক পুরোনো রবীন্দ্র সরণির তাজ সুর্মা ও আতর স্টোর্সের মালিক জামালুদ্দিনের কথাতেও স্পষ্ট, দাবি আতরের ক্রেতা দিন দিন কমছে৷ ফলে ক্রমশ হারিয়ে যাচ্ছে খস, উদ, গোলাপ, মালতি, মজমুয়ার মতো দামি আতর৷পারফিউম, বডি স্প্রের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে আতরের সুগন্ধ কতদিন দীর্ঘস্থায়ী হবে, এখন সে প্রশ্নই ভাবাচ্ছে শতবর্ষ পেরোনো আতর বিক্রেতাদের৷