ঢাকা, শুক্রবার ১৮, জানুয়ারি ২০১৯ ০:২১:৩৭ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
শিরোনাম
কৃষির উন্নয়ন করে দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়া সম্ভব : স্পিকার সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে `জিরো টলারেন্স` : প্রধানমন্ত্রী জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর নামে ফেসবুক খুলে প্রতারণা, গ্রেফতার ৫ পরীক্ষায় নকল রোধে আসছে আধুনিক প্রযুক্তি অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন থেরেসা মে বঙ্গমাতা আন্তর্জাতিক নারী ফুটবলের স্পন্সর ‘কে-স্পোর্টস’ জাতিসংঘের এক-তৃতীয়াংশ নারীকর্মী যৌন হয়রানির শিকার মুসলিম উম্মাহকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সংরক্ষিত আসনে ত্যাগী-রাজপথে সক্রিয়দের প্রাধান্য : কাদের জমতে শুরু করেছে বাণিজ্যমেলা, ছাড়ের ছড়াছড়ি

এ বছর শেষেই টেনিস কোর্টে ফিরবেন সানিয়া মির্জা!

ক্রীড়া ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০১:৫৭ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট

পুত্র সন্তানের মা হওয়ার পর থেকেই সানিয়া মির্জার মন পড়ে রয়েছে কোর্টে, ২০২০ সালে ফেরার কথাও জানিয়েছিলেন চেনা রুপে। কিন্তু না, এ বছরের শেষেই তাকে দেখা যাবে টেনিসে।

সন্তানের মা হওয়ার পর টেনিসে আগের সেই জায়গা ফিরে পাওয়া সানিয়ার জন্য বেশ কষ্টকরই হবে। ব্যাপারটি নিজেও জানেন তিনি। তাই বলে দমে যেতে চান না ভারতের এ তারকা। এরইমধ্যে ফেরার প্রস্তুতিও শুরু করেছেন বলে জানিয়েছেন ৩২ বছর বয়সী সানিয়া, ‘অনেক দিন থেকেই আমি একজনের স্ত্রী। সদ্য মা-ও হলাম। খুব চেষ্টা করব আবার নিজের টেনিসকে সেরা জায়গায় নিয়ে যাওয়ার। জানি কাজটা সহজ নয়। তবে এটাও জানি যে, কঠোর পরিশ্রম করলে তার ফল পাওয়া যায়।’

সানিয়া আরও বলেছেন, ‘নিজের জন্য অবাস্তব কোনও লক্ষ্য রাখছি না। আপাতত টেনিসে ফেরার চেষ্টাই করব। হয়তো এ বছরের শেষেই সেটা হতে যাচ্ছে। আগে অবশ্য বলেছিলাম, ২০২০ সালে টেনিসে ফিরব। তার কারণও ছিল। অবশ্য এই ফেরার জন্য নিজেকে চাপে ফেলার পক্ষপাতী নই আমি।’

পরিবারের নতুন অতিথির আগমণে অন্য কিছুতে আর প্রাধান্য দেওয়া যায় না। ব্যাপারটি সানিয়ার ক্ষেত্রেও ঘটেছে। তবে ধীরে ধীরে এ টেনিস তারকা চেষ্টা করছেন আগের জায়গায় ফিরতে, ‘বাড়িতে কোনও শিশুর আগমন ঘটলে জীবনটাই যেন বদলে যায়। তখন আর সর্বক্ষেত্রে নিজেকেই অগ্রাধিকার দেওয়া যায় না। আমরা খেলোয়াড়রা সারা জীবন ধরেই যেন একটু হলেও স্বার্থপর। কিন্তু মা হওয়ার পরে আর সেটা থাকে না।’

-জেডসি