ঢাকা, সোমবার ২১, সেপ্টেম্বর ২০২০ ৮:১৩:৫৬ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
করোনায় আরও ২৬ জনের প্রাণহানি শীতে করোনা খারাপের দিকে যেতে পারে: প্রধানমন্ত্রী বনানীর আহমেদ টাওয়ারে আগুন নিয়ন্ত্রণে খালেদা জিয়ার আরও চার মামলার স্থগিতাদেশ বহাল বিশ্বে একদিনে করোনায় আক্রান্ত প্রায় ৩ লাখ, মৃত্যু ৫১৪২

করোনায় অবরুদ্ধ বিশ্বের এক তৃতীয়াংশ মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০১:৫৭ পিএম, ২৫ মার্চ ২০২০ বুধবার

করোনায় অবরুদ্ধ বিশ্বের এক তৃতীয়াংশ মানুষ

করোনায় অবরুদ্ধ বিশ্বের এক তৃতীয়াংশ মানুষ

ভারতের ১শ কোটিরও বেশি লোক আজ বুধবার থেকে তিন সপ্তাহের লকডাউনে গেছে। ভয়াবহ করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় বিশ্বের এক তৃতীয়াংশ মানুষ এখন ঘরে থাকতে বাধ্য হচ্ছে।

এই মহামারী জাপানকে অলিম্পিক ক্রীড়া আয়োজন আগামী বছর পর্যন্ত স্থগিত করতে বাধ্য করেছে।

এদিকে আগামী ১২ এপ্রিল ইস্টার সানডে। সে নাগাদ পরিস্থিতির উন্নতির আশা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু তার আশাবাদ সত্ত্বেও ভাইরাস মোকাবেলায় অঙ্গরাজ্য সরকারগুলো নজিববিহীন উদ্যোগ নিয়ে যাচ্ছে।

ভারত তার দেশের ১শ ৩০ কোটি লোককে আগামী তিন সপ্তাহ ঘরে থাকার নির্দেশ দিয়েছে।

এক টেলিভিশন ভাষণে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ভারতকে রক্ষায়, ভারতের প্রত্যেক নাগরিককে রক্ষায় আপনি, আপনার পরিবার, প্রতিটি সড়কসহ সবকিছু লকডাউনের আওতায় থাকবে।

এদিকে গতবছর চীন থেকে ভয়াবহ এই ভাইরাস বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। চীনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসার পর এখন তারা কঠোর পদক্ষেপগুলো অনেকটাই শিথিল করেছে।

করোনার কারণে খেলাধুলাসহ বিশ্বের নানা সাংস্কৃতিক আয়োজন বন্ধ হয়ে গেছে। জাপানে ২০২০ সালে অলিম্পিক আয়োজনের কথা থাকলেও তা এখন ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত হবে। এ প্রথমবারের মতো আয়োজকরা অলিম্পিক আয়োজন একবছর পেছাতে বাধ্য হলেন।

এদিকে এএফপি’র হিসেব মতে, কোভিড-১৯ এর কারণে বিশ্বে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৮ হাজার ২শ এবং এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে চার লক্ষ পাঁচ হাজার জন।

করোনা নিয়ে ইউরোপের পরিস্থিতি এখনও সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ইতালি থেকে মিশ্র সংবাদ পাওয়া গেছে। শনিবার দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ছিল ৭৯৩ জনে। দুদিন পর এ সংখ্যা কিছুটা কমে দাঁড়ায় ৭৪৩ জনে। কিন্তু আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে বলে নতুন রেকর্ডে বলা হয়েছে।

আয়ারল্যান্ডে বিশেষ জরুরি প্রয়োজন ছাড়া সকল কার্যক্রম বন্ধ এবং ব্রিটেন লন্ডনে চার হাজার শয্যাবিশিষ্ট জরুরি হাসপাতাল নির্মাণের পরিকল্পনা করছে। স্পেন ন্যাটো সামরিক জোটের কাছে বাস্তব সহায়তা চেয়েছে।
করোনার কারণে আফ্রিকার পরিস্থিতিও নাজুক। তাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা এমনিতেই ভঙ্গুর। তার উপর করোনা মোকাবেলায় হিমশিম খাওয়া আফ্রিকায় আক্রান্ত ও মৃত্যু দুটোর সংখ্যাই বাড়ছে।

এদিকে আমেরিকার প্রায় ১৩ কোটি অথবা মোট জনসংখ্যার ৪০ শতাংশ লোক হয় ঘরে বন্দী না হয় শিগগীরই আটকা পড়তে যাচ্ছে। কারণ অঙ্গরাজ্যের সরকারগুলো বিশেষজ্ঞদের মতামতকে গুরুত্ব দিয়ে আইসোলেশানকে প্রাধান্য দিচ্ছে। যদিও ট্রাম্প মনে করছেন, এর জন্যে আর্থিক মূল্য দিতে হবে অনেক।
ফক্স নিউজকে তিনি বলেন, ‘অনেকেই আমার সাথে একমত হবেন। আমাদের দেশ তা বন্ধের জন্যে তৈরি হয়নি। সবকিছু বন্ধ রেখে তুমি একটি দেশ ধ্বংস করে দিতে পারো।’

এদিকে, স্পেনে একদিনে ৫১৪ জনের মৃত্যু এবং সব মিলিয়ে ৪০ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হওয়ার পর করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ন্যাটোর কাছে মানবিক সহায়তা চেয়েছে দেশটি।

দেশটির সরকার লাখো সার্জিক্যাল মাস্ক, গ্লাভস, গাউন, থার্মোমিটারসহ অন্যান সরঞ্জাম সরবরাহের আহ্বান জানিয়েছে।

‌‌‌‌
দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সালভাডর ইলা বলেন‌, ‌আমরা ভাইরাস আক্রমণের শুরুর ধাপে রয়েছি, এর থেকে মহামারির সর্বোচ্চ পৌঁছানোর লড়াই শুরু হবে।

ইউরোপে ইতালির পর সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত দেশ স্পেন