ঢাকা, বুধবার ২২, জানুয়ারি ২০২০ ২২:১৯:৫৫ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
ই-পাসপোর্ট ‘মুজিব বর্ষে’ উপহার: প্রধানমন্ত্রী নেপালে নারী-শিশুসহ ৮ ভারতীয় পর্যটকের মৃত্যু ই-পাসপোর্ট উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শিক্ষকদের প্রশিক্ষণে প্রয়োজনে বিদেশে পাঠান: প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী ইতালি যাচ্ছেন ৩ ফেব্রুয়ারি

‘কেথ্রিজি’ মুক্তির সময় কাজলের জীবনে ট্র্যাজেডি

বিনোদন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৩:২৫ পিএম, ৯ জানুয়ারি ২০২০ বৃহস্পতিবার

‘কেথ্রিজি’ মুক্তির সময় ব্যক্তিগত জীবনে ঘটেছিল চরম অঘটন

‘কেথ্রিজি’ মুক্তির সময় ব্যক্তিগত জীবনে ঘটেছিল চরম অঘটন

সালটা ২০০১। করণ জোহর পরিচালিত, অমিতাভ-শাহরুখ-কাজল-হৃতিক অভিনীত ছবি ‘কভি খুশি কভি গম’ সবে মুক্তি পেয়েছে। আর মুক্তি পেতেই বক্স অফিসে সুপারহিট। ফ্যামিলি ড্রামা, শাহরুখ-কাজলের ভরপুর রোম্যান্স, ট্র্যাজেডি-কমেডি মাখা ওই ছবি দর্শকের মনে জায়গা করে নিয়েছিল খুব কম সময়েই। কিন্তু কাজলের ব্যক্তিগত জীবন তখন উথালপাথাল। ঘটে গিয়েছে বড় অঘটন। হারিয়েছেন প্রথম সন্তানকে। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সেই সব কথাই শেয়ার করলেন কাজল।

কাজল বলেন, “কভি খুশি কভি গমের সময়েই অন্তঃসত্ত্বা ছিলাম আমি। যে দিন ছবি মুক্তি পায়, আমি হাসপাতালে ছিলাম। ফিল্ম সুপারহিট। কিন্তু আমার জন্য মোটেও সুখকর ছিল না। আমার প্রথম সন্তান মিসক্যারেজ হয়ে যায়। আমার এবং অজয় দু’জনেই খুব খারাপ সময় কাটিয়েছি।”

শুধু তাই নয়, তাদের দ্বিতীয় সন্তানও মিসক্যারেজ হয়ে যায় বলে জানান কাজল। যাই হোক অবশেষে বছর দুই বাদে ২০০৩-এর এপ্রিলে জন্ম হয় কাজল-অজয়ের মেয়ে নাইসা দেবগণের। এর প্রায় সাত বছর পর ২০১০-এ জন্ম হয় ছেলে যুগের।

ওই সাক্ষাৎকারে অজয়ের সঙ্গে প্রথম সাক্ষাৎ থেকে শুরু করে বিয়ের নানা অজানা তথ্যও শেয়ার করেছেন তিনি। অজয়ের সঙ্গে প্রথম ‘মুলাকাত’ কোথায় হয়েছিল তার? কাজল জানান, পঁচিশ বছর আগে ‘হালচাল’-এর সেটেই দেখা হয়েছিল ওই লাভ বার্ডসের। যদিও প্রথম দেখাতেই প্রেমে পড়ে যাননি একে অপরের। বরং অজয়ের ব্যাপারে নিন্দামন্দই করেছিলেন কাজল। ধীরে ধীরে বন্ধুত্ব হয়, বন্ধুত্ব প্রেমে গড়িয়ে পরিণতি প্রায় প্রেমে। কাজলের কথায়, “যখন প্রথম অজয়ের সঙ্গে আমার দেখা হয়, সে সময় অন্য একজনের সঙ্গে সম্পর্কে ছিলাম আমি। শুধু আমি নয়, অজয়েরও তখন অন্য গার্লফ্রেন্ড ছিল। আমি তো মাঝে মাঝে আমার তখনকার বয়ফ্রেন্ডের নামে অজয়ের কাছে নালিশও করতাম।” না, দু’জন একে অপরকে প্রপ্রোজ করেননি কোনওদিন। দু’জনেরই ব্রেকআপ হয়ে যায়, এবং ওরা বুঝতে পারেন ‘দে আর মেন্ট টু বি টুগেদার’ ।

কাজল-অজয় বিয়ে করেন ১৯৯৯ সালে। পরিবারের লোকজন নিয়ে ঘরোয়াভাবে বাড়িতেই হয়েছিল বিয়ের অনুষ্ঠান। নিজের ব্যক্তিগত অনুষ্ঠানে মিডিয়ার অনুপ্রবেশ মোটেও চাননি ওই জুটি। আর সে জন্যই মিডিয়াকে ইচ্ছা করেই বিয়ের ভুল জায়গা বলেছিলেন তারা। পঞ্জাবি এবং মারাঠি রীতিতেই হয়েছিল কাজলের বিয়ের অনুষ্ঠান।
 
ইন্ডাস্ট্রিতে এত ব্রেক আপ, এত ডিভোর্সের মাঝে কাজল-অজয়ের লাভ-স্টোরি ২০২০ সালেও ‘রিলেশনশিপ গোল’ দিয়ে যাচ্ছে। ১০ জানুয়ারি, বহু বছর পর বর-কনে আবারও একসঙ্গে বড় পর্দায়। আসছে কাজল-অজয় অভিনীত ছবি ‘তানাজি, দ্য আনসাং ওয়ারিয়র’।