ঢাকা, রবিবার ০৮, ডিসেম্বর ২০১৯ ১৯:৫০:৫১ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে স্বর্ণজয়ী সালমারা আরচ্যারির ১০ ইভেন্টের ফাইনালে বাংলাদেশ রুম্পা হত্যা: বিচার দাবিতে বিক্ষোভে উত্তাল স্টামফোর্ড এসএ গেমস : আর্চারিতে মেয়েদের সোনা জয় কুমিল্লায় বাড়ির ছাদ থেকে পড়ে গৃহবধূর মৃত্যু

খুলনা ও লক্ষ্মীপুরে ডেঙ্গুতে শিশুসহ ২ জনের মৃত্যু

ইউএনবি | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৯:৪৮ পিএম, ১৩ আগস্ট ২০১৯ মঙ্গলবার

সারা দেশে ডেঙ্গুর ভয়াবহতার মধ্যে এবার খুলনা ও লক্ষ্মীপুরে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে শিশুসহ দুজনের মৃত্যু হয়েছে। লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে ডেঙ্গু আক্রান্ত চার বছরের এক শিশুকে হাসপাতালে নেয়ার পথে সোমবার রাতে মারা যায়। শিশু পরশ কমলনগর উপজেলা চরজাঙ্গালীয়ার দাসপাড়া এলাকার কামরুজ্জামানের ছেলে।

পরশের খালু মো. ইব্রাহিম জানান, শনিবার সকাল থেকে পরশের জ্বর দেখা দেয়। দুই দিনেও জ্বর ভালো না হওয়ায় সোমবার বিকালে পরীক্ষায় ডেঙ্গু ধরা পড়ে। পরে ডা. মোরশেদ আলম হিরু নামে একজন শিশু বিশেষজ্ঞকে দেখানো হলে তিনি পরশকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু নোয়াখালীতে নেয়ার পথে রাত ১০টার দিকে সে মারা যায়।

খুলনা: ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রাসেল (৩২) নামে এক ব্যক্তি সোমবার মধ্যরাতে মারা গেছে।

চিকিৎসকরা জানান, নিহত রাসেলের বাড়ি গোপালগঞ্জে।

খুলনা সিভিল সার্জন আব্দুর রাজ্জাক জানান, দুদিন আগে ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে রাসেল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।

প্রসঙ্গত, ঈদের দিন পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় দুই হাজার ৯৩ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত নতুন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৮৪২ জনই ডেঙ্গু প্রাদুর্ভাবের মূলকেন্দ্র রাজধানীতে এডিস মশার কামড় থেকে এ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম জানায়, ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা সর্বমোট ৪৩ হাজার ২৭১ জন। বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন মোট ৩৫ হাজার ২২৫ জন।

বর্তমানে ঢাকায় ৪০টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সর্বমোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা চার হাজার ২০২ জন এবং ঢাকার বাইরে অন্যান্য বিভাগে মোট ভর্তি রোগীর সংখ্যা তিন হাজার ৮০৪ জন।

সরকারি হিসেবে এ পর্যন্ত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৪০ জন। তবে বেসরকারি অনুমান বলছে মৃতের সংখ্যা আরও অনেক বেশি।