ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২২, এপ্রিল ২০২১ ১৬:২৮:১১ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী দেশে পুরুষের চেয়ে নারীর গড় আয়ু বেশি ১১ কোটি টাকা প্রণোদনা পাচ্ছেন ২৬৭৯ নার্স ভারতে একদিনে ৩ লাখ ১৬ হাজার শনাক্তে ফের বিশ্ব রেকর্ড বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৩০ লাখ ৭১ হাজার

গিনেস বুকে স্থান পাচ্ছে শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০১:১১ পিএম, ১০ মার্চ ২০২১ বুধবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

চুলচেরা বিশ্লেষণের পর আগামী ১৭ মার্চের আগেই গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি স্থান করে নেবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন গিনেস কর্তৃপক্ষের পাঠানো প্রতিনিধি দল। রেকর্ডের সব শর্তই পূরণ করতে সক্ষম হয়েছে জানিয়ে তারা বলছেন, প্রতিকৃতির স্বীকৃতি গিনেস বুকে উঠতে আর কোন বাধা নেই। এদিকে আয়োজকরাও উৎফুল্ল স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ধানের চারায় বঙ্গবন্ধুর মুখচ্ছবি অঙ্কনে সফলতা নিয়েও।

এ কৃষকের সম্মান নিয়ে যিনি দরাজ কণ্ঠে একদিন সোচ্চার হয়েছিলেন সেই কৃষকই আজ তাকে পূর্ণ সম্মান জানাতে নিজ ফসলি জমিতে শস্যচিত্রের মাধ্যমে এঁকেছেন বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি। আর তাদের এ প্রচেষ্টাই গড়তে যাচ্ছে বিশ্বরেকর্ড। গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে ঠাঁই হতে যাচ্ছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ ক্রপ ফিল্ড মোজাইক বা শস্যচিত্রে অঙ্কিত বঙ্গবন্ধুর মুখচ্ছবি। বগুড়ার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত বালেন্দার গ্রামে ১০০বিঘা জমির উপরে বিশাল ক্যানভাসে ধানের চারায় আঁকা হয়েছে এ প্রতিকৃতি।

রেকর্ড লিপিবদ্ধ করতেই তাই গিনেস ওয়ার্ল্ডের প্রতিনিধি দল বগুড়ার এ প্রত্যন্ত অঞ্চলে। মাপ-জোক আর গিনেসের শর্তের চুলচেরা বিশ্লেষণ ছিল তাদের।

আগামী ২৬ মার্চের আগেই আসবে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি। এমনটাই আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা। এমন আয়োজনে গর্বিত আয়োজকরাও, জানান কমিটির সদস্য বাহাউদ্দিন নাসিম।

এমন ব্যতিক্রমী আয়োজনে উচ্ছসিত কৃষকের মুখেও ছিল তৃপ্তির হাসি। নিজেদের জমিতে এমন প্রতিচিত্র উদ্বেলিত করেছে তাদেরও।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু জাতীয় পরিষদের উদ্যোগে ন্যাশনাল অ্যাগ্রিকেয়ার গ্রুপের সার্বিক সহযোগিতায় কৃষকের মাঠে আঁকা হয়েছে এই শিল্পকর্ম। চীন থেকে আনা বেগুনি রংএর হাইব্রিড ধানের চারা 'এফ-1' ও দেশীয় সবুজ রং এর ধানের চারা 'জনকরাজ' ব্যবহার করা হয়েছে এই শস্যচিত্রে।

-জেডসি