ঢাকা, শুক্রবার ২০, সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৮:১০:১৯ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
নয়নের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কের কথা স্বীকার মিন্নির, দিলেন বর্ণনা যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ খুলনা মেডিকেলে ডেঙ্গু জ্বরে গৃহবধূর মৃত্যু

ঘরের মধ্যে কি ধরনের গাছ লাগাবেন!

অনলাইন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১১:০৮ এএম, ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ শুক্রবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

শহরে বেশিরভাগ লোকজনই ফ্ল্যাটে বাস করতে অভ্যস্ত, বাড়ির সামনে বাগান তাই অনেকের কাছেই স্বপ্ন। কিন্তু এমন অনেক গাছপালাই আছে যা ফ্ল্যাটে লাগানো যায়, এর জন্য আপনার বড় ব্যালকনি বা ছাদেরও দরকার নেই। ইনডোর প্ল্যান্টস শুধু দেখতে সুন্দর লাগে তাই নয়‚ একই সঙ্গে এই গাছপালা ঘরের ভিতরের ক্ষতিকারক গ্যাস এবং দূষিত পদার্থের হাত থেকে আমাদের সুরক্ষিত রাখে। তাছাড়া, পরিবেশ সুন্দর রাখতে গাছের ভূমিকা আমরা সবাই জানি।

গাছের সবুজ রঙ চোখের জন্য বেশ উপকারী। ঘরের কোনায় বা কাজের ডেস্কে একটি ছোট গাছের টব ঘরের শোভা বাড়ায়। তাছাড়া ঘরে গাছ থাকলে তা কমে স্ট্রেস। পরিবেশ ও মন- দু’টিই ভাল রাখে গাছ। কিন্তু ঘরের মধ্যে কি ধরনের গাছ লাগাবেন?

আজ সেগুলোই দেখে নেয়া যাক:

মানি প্লান্ট:
এই গাছটির সঙ্গে প্রায় প্রত্যেকেই পরিচিত। ছোট টবে করতে পারলে ভীষণ সুন্দর লাগে এই গাছ। রাখতে পারেন আপনার কাজের ডেস্কে অথবা বইয়ের তাকে। আপনার মাটি ভরতি টবে কয়েকটি মানি প্ল্যান্টের কাটিং পুঁতে দিন। নিয়মিত পানি দিন। ছায়ায় রাখুন। কয়েকদিনের মধ্যেই কাটিং-গুলি বাড়তে শুরু করবে। প্রয়োজন মতো ছেঁটে দেবেন। ব্যাস্, এটুকু করতে পারলেই সুন্দর থাকবে আপনার ‘টাকার গাছ’।

অ্যালোভেরা গাছ:
কসমেটিক্সের কৌটোয় এই গাছের ছবি সকলেই দেখেছেন। লম্বা পাতার কাঁটা কাঁটা এই গাছ দেখতে বেশ সুন্দর। আপনার বারান্দার শোভা বাড়াবে এই গাছ। শুধু তাই নয়, অ্যালোভেরার প্রচুর গুণও আছে। অ্যালোভেরার রস যে কোনও ধরনের ত্বকের পক্ষে উপকারি। অ্যালোভেরা গাছ একবার ধরে গেলে প্রচুর চারা হয়। তাই এই গাছ আছে এমন কারও থেকে চেয়ে নিতে পারেন চারা। বাজারেও খুব বেশি দাম হয় না এই গাছের। তবে, এই গাছের গোড়ায় যেন জল না বসে সেই দিকে নজর রাথুন।

এরিকা পাম:
এই গাছের পাতা সুপারি গাছের মতো। অন্যান্য গাছের তুলনায় পাতার পৃষ্ঠভূমিও বেশি। ফলে, বেশি অক্সিজেন উত্পাদন হয়। ঘরের কোনে রাখলে বেশ সুন্দর লাগে এই গাছ। দেখভাল করা সহজ এবং দামও সাধ্যের মধ্যেই।

মাদার-ইন-লস টাঙ:
বেশ মজাদার নামের এই গাছ দেখতেও বেশ অন্যরকম। গাছটি ইদানিং ইন্টিরিয়ার ডিজাইনারদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে। হবে নাই বা কেন? ঘরের কোনে অল্প সরু জায়গাতেই রাখা যায়। লম্বা কালচে সবুজ পাতার দুই পাশে টানা হলুদ দাগ। অক্সিজেনের মাত্রাও অনেক বাড়িয়ে দেয়। বাজারে খুব বেশি দাম না। অ্যালোভেরার মতোই পাশ দিয়ে চারা বের হয় এই গাছের।

রাবার গাছ:
অন্যান্য গাছের তুলনায় এই গাছের আকার বেশ বড়। তাই ঘরের দালানে বা বারান্দায় বেশ সুন্দর লাগে এই গাছ। দেখভাল করাও সহজ। দামও খুব বেশি না। ঘরের অক্সিজেনের মাত্রা বৃদ্ধি করে এই গাছ। কালচে সবুজ পাতার এই গাছ আপনার গৃহসজ্জায় মূল আকর্ষণ হবে।

এছাড়াও আরো অনেক গাছ আছে যেগুলো ঘরের সৌন্দর্য বাড়ায়। যেমন: চায়নিজ এভারগ্রিন, পিস লিলি, স্পাইডার প্ল্যান্ট, স্নেক প্ল্যান্ট বা সর্প গাছ, ব্যাম্বু পাম, চন্দ্রমল্লিকা ইত্যাদি।

ঘরের মধ্যে গাছের পরিচর্যায় কিছু টিপস:

১) ইনডোর প্ল্যান্ট বেশি বড় করবেন না। এতে ঘর অন্ধকার লাগবে। তাই নিয়মিত গাছের ডাল ও পাতা ছেঁটে দিন।
২) গাছের মাটিতে ভেজা চায়ের পাতা দিতে পারেন, এতে গোড়ার মাটি সহজেই শুকিয়ে যাবে না এবং তা ভালো সার হিসেবেও কাজ করবে।
৩) চা পাতা ও ডিমের খোসা গুঁড়ো করে একসঙ্গে মিশিয়ে সাত-আট দিন রোদে দিন, এই মিশ্রণটি যে কোনো গাছের জন্য ভালো সার হতে পারে।
৪) অতিরিক্ত আলোর নিচে রাখলে গাছের রং বিবর্ণ হয়ে যায়, তাই ঠান্ডা ও আলো কম পৌঁছায় এমন জায়গায় গাছ রাখেন।
৫) যাদের অ্যাজমা বা অ্যালার্জির সমস্যা আছে, তাদের ঘরে এসব উদ্ভিদ না রাখাই ভালো।
৬) শিশুদের ঘরেও স্যাঁতসেঁতে টব রাখা ঠিক নয়। তাদের কাছ থেকে কাঁটাযুক্ত গাছ দূরে রাখতে হবে।
৭) প্লাস্টিকের চেয়ে মাটির টব গাছের জন্য বেশি উপকারী।
৮) প্রতিটি গাছের জন্য দুটি করে মাটির টব ব্যবহার করতে পারেন। গাছ লাগানোর জন্য একটি সাধারণ টব, অন্যটি আকারে একটু বড়, রঙিন ও কারুকাজ করা আউটার পট। যার মধ্যে সাধারণ টবে লাগানো গাছটি বসিয়ে দেবেন। এভাবে গাছ রাখলে দেখতে সুন্দর লাগবে এবং মাটির সংস্পর্শে না থাকায় পটে শেওলা পড়বে না।
৯) গাছগুলো ঘরের এক জায়গায় না রেখে মাঝে মাঝে স্থান পরিবর্তন করতে পারেন, তাতে ঘরের সাজে নতুনত্ব আসবে।
১০) ছুটির দিনে ওদেরও ছুটিতে পাঠান, অর্থাৎ বারান্দায় এনে কিছুক্ষণ রাখেন যেন খোলা আলো-বাতাস পায়।
১২) যেকোনো সমস্যা হলে অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিন। তা ছাড়া ইন্টারনেটেও হাউসপ্ল্যান্ট সম্পর্কে যথেষ্ট তথ্য পাবেন।

-জেডসি