ঢাকা, শনিবার ২৫, মে ২০১৯ ১১:৩৮:৪৪ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
শিরোনাম
গুজরাটে কোচিং সেন্টারে আগুন, ১৮ শিক্ষার্থী নিহত পদত্যাগের ঘোষণা দিলেন থেরেসা মে, কাঁদলেনও

ছোট ফ্ল্যাট সাজানোর সহজ উপায়

লাইফস্টাইল ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৫:২৮ পিএম, ৯ মার্চ ২০১৯ শনিবার

জীবিকা আর প্রয়োজনের তাগিদে বর্তমান সময়ে নগরের একক পরিবারগুলোর সদস্যদের বেশিরভাগ সময়টাই বাইরে ব্যয় করতে হয়। তাই বলে যে ঘরে থাকা হয় না একেবারেই সেটা তো আর নয়! কাজেই যেটুকু সময়স ঘরে থাকতে হয় সেটুকু সময় একটু স্বস্তিতে নিশ্বাস না নিলে কী আর চলে? ওদিকে আবার মাথায় রাখতে হয় ফ্ল্যাট ভাড়ার বিষয়টাও। সাথে বাসা পরিষ্কারেরও রয়েছে নানা ঝক্কি।

আর তাইতো এখন নগরের ছোট পরিবারগুলো ঝুঁকছে ছোট ফ্ল্যাটের দিকে। তবে ফ্ল্যাট ছোট হলেই যে ঘরগুলোকে  নিজের মনের মতো সাজানো যাবে না তেমনটা নয়। বরং একটু মাথা খাটালেই ছিমছাম সাজে সাজানো যাবে ঘরগুলো।
  
অনেক ছোট হওয়ায় আধুনিক ফ্ল্যাটগুলোতে ঘরের ব্যাপ্তিও অনেক কম থাকে।এজন্যই  ছোট বাসার অন্দরসজ্জা নিয়ে আমাদের চিন্তার শেষ থাকে না।এতো ছোট ঘরে কোথায় কোন আসবাব রাখব, কেমন আসবাব কিনলে ঘরের জায়গা কম লাগবে, দেয়ালে কোন রঙের ব্যবহারে ঘরে আলো ঢুকবে।অর্থাৎ আমাদের সমস্ত চিন্তাজুড়েই থাকে কীভাবে ছোট  ঘরটাকে একটু সুন্দর করে সাজানো যায়, সাথে ঘরটাকে একটু বড় দেখানো যায়। 

বিশেষজ্ঞরা বলেন, ছোট কোন ফ্ল্যাটকে সাজাতে পছন্দ, চাহিদা, রুচিশীলতা এবং স্বক্ষমতা- এই চারটি বিষয়ের সমন্বয় ঘটান। আর তাহলেই ঘর দেখতে সুন্দর লাগবে একইসঙ্গে ছোট ঘরগুলো  বড় দেখাবে।
 
ছোট ঘরগুলোকে সাজাতে আর বড় দেখাতে যা যা আমরা করতে পারি  সেগুলো হলো-

ছোট বাসায় প্রথমেই মাথায় রাখতে হবে বাথরুম আর রান্নাঘরের বিষয়টা।এটা প্রবাদেই আছে যেকোন বাসার বাথরুম আর রান্নাঘর দেখলেই নাকি সে বাসার মানুষের রুচির পরিচয় পাওয়া যায়।এজন্য বাথরুম ও রান্নাঘর যেন সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকে এব্যাপারে খেয়াল রাখতে হবে।

ঘরের অভ্যন্তরীণ পরিবেশের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করে আলো বাতাসের সঠিক আসা-যাওয়া। তাই আলো বাতাসের ব্যাপারটি শুধু বড় ফ্ল্যাটের জন্য নয়, বরং ছোট ঘরের জন্যও আবশ্যক। এক্ষেত্রে ঘরে আলো বাতাস প্রবেশ করার রাস্তায় হাল্কা রঙের পর্দা ব্যবহার করতে হবে। তবে পর্দার স্থানটিতে কোন অবস্থাতেই ভারী আসবাব রাখা যাবে না। ঘরের ভেতরে আলো-বাতাসের আনাগোনা ঠিক থাকলে মনটাও সবসময় প্রফুল্ল থাকে।

ছোট ঘরে আয়না  খুব গুরুত্ব বহন করে। ডাইনিং বা ড্রয়িং রুমের একপাশে  আয়না থাকলে  রুমের আকার বিশাল দেখাবে আর ফ্ল্যাটও ছোট মনে হবে না। 

ছোট ফ্ল্যাটের ক্ষেত্রে দেয়াল বা ফার্নিচারের রঙ যেন  হালকা হয় এটা খেয়াল রাখতে হবে। এতে দম বন্ধ করার ব্যাপারটি আর থাকে না। তবে দেয়ালের রঙ হিসেবে উজ্জ্বল কিছু ব্যবহার করেও দেখা যেতে পারে।

আসবাবপত্রে বৈচিত্র্য নিয়ে আসতে হবে ছোট ফ্ল্যাটের ঘরগুলো সাজাতে। সব ফার্নিচার একই উচ্চতার  না কিনে কিছুটা নিচু উচ্চতার আসবাব ব্যবহার করে দেখা যেতে পারে। এতে করে ঘর বড় দেখাবে।

হাল্কা আসবাবপত্রের পাশে সবুজ বা রঙ বেরঙ-এর গাছপালা দিয়ে ঘর সাজালে, ঘরে সজিবতা আসবে, পাশাপাশি ঘর প্রাণবন্ত ও সুন্দর দেখাবে। চাইলে ঘর সাজাতে কৃত্রিম ফুলও ব্যবহার  করা যেতে পারে। 

ছোট ঘরের জন্য সাদা রঙের টাইলসই সবচেয়ে ভালো। যদিও এটি খুব সহজেই ময়লা হয়, তারপরও এটি ভালো। কারণ সাদা টাইলস ঘরের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করার পাশাপাশি ঘরকেও বড় দেখাতে সাহায্য করে। তবে বাথরুম এবং রান্নাঘরে অন্য রঙের টাইলস ব্যবহার করা যেতে পারে।

ছোট ঘরের দেয়ালে সাদা রঙ ব্যবহার করা ভালো।সাদা টাইলসের পাশাপাশি সাদা দেয়াল ঘরকে বিশাল দেখাবে। পাশাপাশি দেখতেও ভাল লাগবে। তবে দেয়ালে বৈচিত্র্য আনতে চাইলে নানা রঙের ওয়াল পেপার ব্যবহার করা যেতে পারে।এক্ষেত্রে ওয়াল পেপার অবশ্যই লম্বা লম্বি ভাবে লাগাতে হবে। চাইলে যে কোন ছবির ফ্রেমও দেয়ালে লম্বালম্বি ভাবে রাখা যেতে পারে।

ছোট ঘরে ভারী  ফার্ণিচার ব্যবহার করা উচিত নয়। ভারি ফার্নিচার বেশি জায়গা নেয়। আবার আলো বাতাস চলাচলেও বাঁধা দেয়। তাছাড়া ঘরের সৌন্দর্য নষ্ট করে ছোট রুমের আকার আরো ছোট করে দেয়।

তথ্যসূত্র: ইন্টারনেট