ঢাকা, রবিবার ১৭, নভেম্বর ২০১৯ ২১:৩৬:২৭ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
সরকারি ব্যয়ে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে: স্পিকার প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিলো বিএনপি প্রাথমিক-ইবতেদায়ি পরীক্ষা শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত আদাবরে স্ত্রী খুন, স্বামী পলাতক চট্টগ্রামে বিস্ফোরণের ঘটনায় ৫ সদস্যের কমিটি গঠন

পদত্যাগে জোরালো প্রমাণ লাগবে: জাবি উপাচার্য

ডেস্ক রিপোর্ট | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০১:২৫ পিএম, ৮ নভেম্বর ২০১৯ শুক্রবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

দুর্নীতির অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের পদত্যাগসহ ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে কয়েকদিন ধরে আন্দোলন করছে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনকারীরা জানান, উপাচার্যের পদত্যাগের একদফা দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত চলবে এই আন্দোলন। এদিকে, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিশ্ববিদ্যালয়ে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

এদিকে আন্দোলন ও পদত্যাগের বিষয়ে একটি গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে উপাচার্য ফারজানা ইসলাম বলেন, ‘পদত্যাগ করতে হয়, তাহলে জোরালো ঘটনা লাগবে, জোরালো প্রমাণ লাগবে।’

তিনি বলেন, ‘এ আন্দোলনের পেছনে হয়তো এক বা দুই পার্সেন্ট শিক্ষক-শিক্ষার্থী রয়েছে। এরা কোনো নির্বাচিত প্রতিনিধি নয়। এরা হঠাৎ কতগুলো মানুষ জড়ো হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়কে নানাভাবে অস্থির করে তুলেছে।’

উপাচার্য আরও বলেন, ‘আমার যদি পদত্যাগ করতে হয়, তাহলে জোরালো ঘটনা লাগবে, জোরালো প্রমাণ লাগবে। সরকার শিক্ষামন্ত্রীকে দিয়ে উদ্যোগ নিয়েছেন যে সাত তারিখের মধ্যে আপনারা যুক্তিসহ, অকাট্য প্রমাণসহ, অভিযোগ দিন। আমি ব্যবস্থা নেবো। প্রয়োজনে আমরা তদন্ত করবো, তখন যদি তিনি দোষী সাব্যস্ত হন আমরা ব্যবস্থা নেবো। এত বড় কথা বলার পরেও তারা অভিযোগ-পত্র তৈরির বদলে এখানে বসে আন্দোলন করছে।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে থেকে শিক্ষার্থীরা এসে আন্দোলনে যুক্ত হয়েছে। যে বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ সংখ্যা গরিষ্ঠ সেখানে ছাত্রলীগ রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করতে পারবে না অথচ বাইরের লোক এসে রাজনীতি করে যাবে এটা কতটুকু যৌক্তিক সেটাও চিন্তা করতে হবে।’

উল্লেখ্য, আন্দোলনের প্রেক্ষিতে দুদিন আগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে হল ছাড়তে বলা হয়। তবে হল ছাড়ার হুঁশিয়ারি সত্ত্বেও ছাত্র শিক্ষকদের একটি অংশ সেখানে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন।

-জেডসি