ঢাকা, শুক্রবার ১৪, আগস্ট ২০২০ ১৬:৫০:৫৬ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
করোনায় আরো ৩৪ জনের প্রাণহানি, শনাক্ত ২৭৭৬ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি সেপ্টেম্বরের শেষে স্কুলে ফিরবে তুর্কী শিক্ষার্থীরা যত দিন বেঁচে আছি এতিমদের পাশে থাকব: প্রধানমন্ত্রী বিশ্বজুড়ে ১৬৫টি করোনার টিকা তৈরির কাজ চলছে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থ জাতীয় শোক দিবসে ঢাকায় কঠোর নিরাপত্তা

বংশানুক্রমিক দারিদ্র্য চক্র ভাঙতে হবে: স্পিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১১:০২ পিএম, ৪ ডিসেম্বর ২০১৯ বুধবার

‘বাংলাদেশ সোশ্যাল সিকিউরিটি কনফারেন্স অ্যান্ড নলেজ ফেয়ার- ২০১৯’ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। ছবি: ফোকাস বাংলা।

‘বাংলাদেশ সোশ্যাল সিকিউরিটি কনফারেন্স অ্যান্ড নলেজ ফেয়ার- ২০১৯’ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। ছবি: ফোকাস বাংলা।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আয় দ্রুতগতিতে বাড়ানোর পদক্ষেপ নিয়ে বংশানুক্রমিক দারিদ্র্য চক্র ভাঙতে হবে। দারিদ্র্যতা নির্মূলের পাশাপাশি অসমতা দূর করে সমতার ভিত্তিতে সমাজ গড়ে তুলতে পারলেই টেকসই উন্নয়ন দৃশ্যমান হবে।

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটারে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও জেনারেল ইকোনমিক ডিভিশনের উদ্যোগে আয়োজিত ‘বাংলাদেশ সোশ্যাল সিকিউরিটি কনফারেন্স অ্যান্ড নলেজ ফেয়ার- ২০১৯’ এ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, পিছিয়ে পড়া বঞ্চিত জনগোষ্ঠীকে উন্নয়নের মূল স্রোতে সম্পৃক্ত করতে হবে। তাদের জন্য সুযোগ তৈরির পাশাপাশি তাদেরকে সামর্থ্যবান হিসেবে গড়ে তোলাও প্রয়োজন। এর ফলে অন্তর্ভূক্তিমূলক উন্নয়নের মাধ্যমে অন্তর্ভূক্তিমূলক প্রবৃদ্ধি অর্জিত হবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের সামাজিক নিরাপত্তা খাতে ব্যাপক বিনিয়োগের মাধ্যমে গরিব মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে চলেছেন। সমাজের প্রান্তিক, অবহেলিত এবং পিছিয়ে পড়া মানুষদের এগিয়ে নিতে একাধিক সুরক্ষা প্রকল্প হাতে নেয় সরকার।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পর শেখ হাসিনাই প্রথম গরিব, দুঃস্থ, বিধবা, বয়স্ক মানুষদের নিয়ে বিশদ চিন্তা-ভাবনা করে দুর্দশা লাঘবে বিভিন্ন ভাতা, অনুদান ও প্রণোদনার ব্যবস্থা করেছেন। দশ টাকা কেজিতে চাল বিতরণ, বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ, স্বল্পমূল্যে ট্রাকে করে খাদ্য সামগ্রী বিক্রি করছে সরকার। সরকারের লক্ষ্য হলো দেশের একটি মানুষও না খেয়ে থাকবে না, কেউ গৃহহীন থাকবে না।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ। পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম এতে কীনোট উপস্থাপন করেন।

সূচনা বক্তব্য রাখেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) শেখ মুজিবুর রহমান। আইএলও বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর, ইউনিসেফ বাংলাদেশের কান্ট্রি প্রতিনিধি, ডিএফআইডি বাংলাদেশের কান্ট্রি প্রতিনিধি, ইউএনডিপি বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি প্রমুখ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।