ঢাকা, রবিবার ০৯, আগস্ট ২০২০ ১৪:৩৭:৪৩ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
বঙ্গমাতার জন্মদিনে দুস্থ নারীদের অর্থ সহায়তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী ব্রাজিলে করোনাভাইরাসে মৃত্যু লাখ ছাড়িয়ে গেল করোনা আক্রান্ত প্রায় ২ কোটি, মৃত্যু ৭ লাখ ২৯ হাজার বায়ুদূষণে গড় আয়ু কমছে ২ বছর: গবেষণা ভারতে আরেক কোভিড হাসপাতালে আগুন, নিহত ৭

বর্ষাতেও ঢাকার বাতাসের মান ‘অস্বাস্থ্যকর’

অনলাইন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৩:২২ পিএম, ১৪ জুলাই ২০২০ মঙ্গলবার

বর্ষাতেও ঢাকার বাতাসের মান ‘অস্বাস্থ্যকর’

বর্ষাতেও ঢাকার বাতাসের মান ‘অস্বাস্থ্যকর’

বর্ষা মৌসুম চললেও রাজধানী ঢাকার বাতাসের মান এখনও অস্বাস্থ্যকর রয়ে গেছে। আজ মঙ্গলবার সকালে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে (একিউআই) বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে উঠে আসে এ মহানগরী।

সকাল ৮টা ১০ মিনিটে একিউআই স্কোর ১৫২ নিয়ে রাজধানী ঢাকার বাতাস অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয়।

সাধারণত, মধ্য জুন থেকে বৃষ্টিপাত শুরুর পর ঢাকার বাতাস পরিষ্কার হতে আরম্ভ করে। আর জুন থেকে অক্টোবর পর্যন্ত বর্ষার মৌসুমে বাতাসের মান মোটামুটি গ্রহণযোগ্য থাকে।

এছাড়া, এ বছর কোভিড-১৯ মহামারির কারণে সরকারি বিধিনিষেধের ফলে মানুষ ও যানবাহনের চলাচল কমে গেছে। সেই সাথে ঢাকায় বন্ধ রয়েছে সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তারপরও বর্ষার মাঝে বাতাসের মান অস্বাস্থ্যকর থেকে গেছে।

একিউআই সূচকে ১৫১ থেকে ২০০ এর মাঝে স্কোর থাকার অর্থ হলো বাতাসের মান অস্বাস্থ্যকর। এ সময় প্রত্যেকের স্বাস্থ্য ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। আর সংবেদনশীল মানুষদের ঝুঁকির মাত্রা থাকে গুরুতর।

আরও পড়ুন: মুজিববর্ষে ১ কোটি চারা গাছ রোপন: বৃহস্পতিবার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

আজ পাকিস্তানের লাহোর ও ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তা যথাক্রমে ১৬৩ ও ১৫৫ স্কোর নিয়ে দূষিত বাতাসের শহরের তালিকায় প্রথম দুটি স্থানে রয়েছে।

প্রতিদিনের বাতাসের মান নিয়ে তৈরি করা একিউআই সূচক একটি নির্দিষ্ট শহরের বাতাস কতটুকু নির্মল বা দূষিত সে সম্পর্কে মানুষকে তথ্য দেয় এবং তাদের জন্য কোন ধরনের স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি হতে পারে তা জানায়।

একিউআই সূচকে ৫০ এর নিচে স্কোর থাকার অর্থ হলো বাতাসের মান ভালো। এ সূচকে ৫১ থেকে ১০০ স্কোরের মধ্যে থাকলে বাতাসের মান গ্রহণযোগ্য বলে ধরে নেয়া হয়। তবে একিউআই স্কোর ১০১ থেকে ১৫০ হলে নগরবাসী বিশেষ করে শিশু, বয়স্ক ও অসুস্থ রোগীদের স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়ার সম্ভাবনা থাকে।

এছাড়া একিউআই মান ২০১ থেকে ৩০০ হলে স্বাস্থ্য সতর্কতাসহ তা জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচিত হয়। এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ এবং অসুস্থ রোগীদের বাড়ির ভেতরে এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়ে থাকে। একিউআই স্কোর ৩০১ থেকে ৫০০ বা তারও বেশি হলে বাতাসের মান ঝুঁকিপূর্ণ মনে করা হয়। এসময় স্বাস্থ্য সতর্কতাসহ প্রত্যেক নগরবাসীর জন্য জরুরি অবস্থা হিসেবে বিবেচিত হয়।

বাংলাদেশে একিউআই নির্ধারণ করা হয় দূষণের পাঁচটি ধরনকে ভিত্তি করে- বস্তুকণা (পিএম১০ ও পিএম২.৫), এনও২, সিও, এসও২ এবং ওজোন (ও৩)।

গ্রীষ্মমণ্ডলীয় মৌসুমি জলবায়ুর কারণে বাংলাদেশে ঋতু পরিবর্তনের সাথে সাথে বৃষ্টিপাত, উচ্চ তাপমাত্রা এবং আর্দ্রতায় বৈচিত্র্য দেখা যায়।