ঢাকা, শুক্রবার ১৩, ডিসেম্বর ২০১৯ ১৮:৩২:৫৫ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস কাল গুগল সার্চের শীর্ষ দশে দীপু মনি রোহিঙ্গা গণহত্যা ইস্যুতে শুনানি শেষ; শিগগিরি রায় পেঁয়াজের দাম কমে অর্ধেকে নেমেছে, সবজিতেও স্বস্তি বিশ্বের ১০০ ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় শেখ হাসিনা ফিলিপাইন্সে সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুসহ ৬ জন নিহত

বিয়ে করলেন গুলতেকিন খান

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১০:২৪ এএম, ১৪ নভেম্বর ২০১৯ বৃহস্পতিবার

স্বামী আফতাব আহমেদের সঙ্গে গুলতেকিন খান।  ছবি: ফেসবুক থেকে।

স্বামী আফতাব আহমেদের সঙ্গে গুলতেকিন খান। ছবি: ফেসবুক থেকে।

অবশেষে বিয়ে করলেন কবি গুলতেকিন খান। তিনি অতিরিক্ত সচিব ও কবি আফতাব আহমেদকে বিয়ে করেছেন। দেশের জনপ্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদ তার প্রথম স্বামী।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, দুই সপ্তাহ আগে ঢাকায় ছোট পরিসরে গুলতেকিনের বাসায় তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। তবে গতকাল হুমায়ূন আহমেদের একাত্তরতম জন্মদিনে এ খবরটি প্রকাশ পায়।

বিয়ের পরই গুলতেকিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে গেছেন। দুই সপ্তাহ পর ফিরে বন্ধু-বান্ধবসহ সবাইকে আমন্ত্রণ জানিয়ে বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠান করবেন।

গুলতেকিন জনপ্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদের প্রথম স্ত্রী ছিলেন। হুমায়ূন শাওনকে বিয়ে করার আগে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে। তারপর সন্তানদের নিয়েই জীবন কাটছিল গুলতেকিনের।

সূত্র আরও জানায়, গত সাত থেকে আট বছর ধরে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে অতিরিক্ত সচিব কবি আফতাব আহমেদের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে। এ বন্ধুত্ব ধীরে ধীরে গভীর সখ্যতা থেকে প্রেমে গড়ায়। নিয়মিত সন্তানদের নিয়েও আফতাব আহমেদের সঙ্গে তার সুন্দর সময় কাটতে থাকে। এদিকে আফতাব আহমেদের সঙ্গে ১০ বছর আগে তার ব্যারিস্টার স্ত্রীর বিচ্ছেদ ঘটে। তার একমাত্র সন্তান লন্ডনে লেখাপড়া করছেন।

আফতাব আহমেদের কবি ও লেখক হিসেবে খ্যাতি রয়েছে। তিনি অভিনেত্রী আয়শা আহমেদের ছেলে।

গত ২৫ অক্টোবর গুলতেকিন তার ফেসবুক পেজে যৌথ ঘোষণা শিরোনামে ‘এবার বাতাস উঠুক তুফান ছুটুক’ স্ট্যাটাস দেন। এতে তার প্রিয়জনরা তাকে অভিনন্দিত করেন এবং তার ভালোবাসাময় জীবনের শুভ কামনা করে অসংখ্য মন্তব্য করেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৭৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়নের শিক্ষক হুমায়ূন আহমেদকে বিয়ে করেছিলেন গুলতেকিন। পরে ২০০৩ সালে তাদের বিচ্ছেদ হয়। তাদের ঘরে এক পুত্রসহ তিন কন্যা সন্তান রয়েছেন। ২০১২ সালে হুমায়ূন আহমেদ ক্যান্সারের আক্রন্ত হয়ে মারা যান।