ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৮, জুলাই ২০১৯ ২:৪৩:৫৪ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
শিরোনাম
রিফাত হত্যায় মিন্নি জড়িত: তদন্তকারী কর্মকর্তা আগামীতে দেশে বিদ্যুৎচালিত ট্রেন চলবে: প্রধানমন্ত্রী পাসের হারে এগিয়ে মেয়েরা মিন্নি পাঁচ দিনের রিমান্ডে এইচএসসির ফলাফলে সন্তুষ্ট প্রধানমন্ত্রী

বুধবারও থাকবে বজ্রবৃষ্টি, বিপদ সংকেত নদীবন্দরে

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০২:০৪ পিএম, ৯ এপ্রিল ২০১৯ মঙ্গলবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

আগামী ১৪ এপ্রিল নববর্ষ পর্যন্ত থাকবে ঝড়-বৃষ্টির এই প্রবণতা। তবে গত কয়েক দিন ধরে যে তীব্রতা-এটা বুধবার পর্যন্ত থাকতে পারে। আজ মঙ্গলবার মুষলধারে ঝরার পর বেলা ১১টার দিকে তুমুল বৃষ্টি নামে নগরজুড়ে। কোথাও কোথাও ছিল জোরালো বাতাস। বৃষ্টিতে নগরীর বিভিন্ন সড়কে পানি জমে গেছে।

আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস বলেন, উপরের দিকে অর্থাৎ ময়মনসিংহ, সিলেট, কুমিল্লা, ঢাকায় আজও বৃষ্টি হবে। সঙ্গে কালবৈশাখীও থাকবে। তবে কালবৈশাখী ও বৃষ্টির তীব্রটা আগামীকাল বুধবারও থাকতে পারে। আশা করা হচ্ছে, এরপর কমে যাবে। তবে বৃষ্টি ও ঝড় বিভিন্ন স্থানে আরও কয়েক দিন থাকবে।

তিনি আরো বলেন, গত সাত দিনে বৃষ্টিটা একটু বেশি হয়েছে এবার। তবে যখন আবার ড্রাই (শুকিয়ে) হয়ে যাবে, একেবারে ড্রাই হয়ে যাবে। এখন বৃষ্টির ঝোঁকটা যাচ্ছে।

এদিকে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, দিনাজপুর, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা এবং সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ২ নম্বর নৌ-হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া দেশের অন্যত্র পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রাজশাহী, রংপুর, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, চৈত্রের শেষের এই সময়টা এমনই। এখন আকাশের গতি-প্রকৃতি বোঝা দায়। এই রোদ তো কিছুক্ষণের মধ্যে কালো মেঘে মুখ ভার। রোদ মুছে ভর দুপুর যেন ঘনায়মান সন্ধ্যা। চলে কালবৈশাখীর তাণ্ডব। এরপর অঝোর ধারায় ঝরে বৃষ্টি, এর সঙ্গে থাকে শিলা। আবার পথে বৃষ্টির পানি গড়াচ্ছে, এর মধ্যেই উঁকি মেরে যায় সূর্য। এটাই গত কয়েক দিনের আবহাওয়ার চিত্র।

-জেডসি