ঢাকা, বুধবার ২১, অক্টোবর ২০২০ ৫:৩৬:৩৩ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
করোনায় প্রাণ গেল আরও ১৮ জনের মাধ্যমিক স্কুলে মূল্যায়ন কীভাবে: শিক্ষামন্ত্রী জানাবেন কাল কোয়ারেন্টিনে রাখার ব্যর্থতায় করোনা আক্রান্ত বাড়ছে: হু সঠিক পদক্ষেপ নেয়ায় করোনায় মৃত্যুর হার কম: প্রধানমন্ত্রী বিশ্বে করোনা আক্রান্ত ছাড়াল ৪ কোটি ৬ লাখ

মেরি স্টোপস ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় নারীর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০২:৫৬ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ সোমবার

মেরি স্টোপস ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় নারীর মৃত্যু

মেরি স্টোপস ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় নারীর মৃত্যু

কেরানীগঞ্জে মেরি স্টোপস ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় সুমি আক্তার (২৪) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। রোববার সন্ধ্যায় সিজারের সময় তার মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করেন সুমির স্বামী জান শরীফ।

নিহতের স্বামীর অভিযোগ, রোববার সকাল ১১টার দিকে সুমিকে মেরি স্টোপস ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে ভর্তির পর জরুরিভাবে তার সিজার করতে হবে বলে জানান কর্তৃপক্ষ। পরে বিকেল ৪টার দিকে তাদেরকে না জানিয়ে সিজার করে মেরি স্টোপস হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ সময় অপারেশন থিয়েটারে ছিলেন- হাসপাতালের ডা. সাজেদা খাতুন ও এনেথেসিয়া ডা. মনির হোসেন। কোনো ধরনের পরীক্ষা না করেই তারা রোগীর শরীরে এনেসথেসিয়া ইনজেকশন দেন ও সিজার করেন। এতে জমজ বাচ্চা (একটি ছেলে ও মেয়ে) জন্ম হয়।

যদিও আরও চারদিন পরে সিজার করার কথা ছিল। সিজার করার পর প্রচণ্ড রক্তক্ষরণে সুমির শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গেলে মেরি স্টোপস্ হাসপাতাল থেকে মিডফোর্ট হাসপাতালে রোগীকে প্রেরণ করা হয়। পরে মিডফোর্ট হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক সুমিকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।


 
এদিকে, মেরি স্টোপস্ হাসপাতালে গিয়ে নানা রকমের অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সেখানে দেখা গেছে, অপারেশন হওয়া রোগীদের ভর্তি ফরমে নাম-ঠিকানা কিছুই নেই। আবার অস্ত্রোপচারের সম্মতিপত্রেও নাম-ঠিকানা ও স্বাক্ষর নেই। এ সময় হাসপাতালের অন্য রোগীর অভিভাবকরাও অভিযোগ করে বলেন, গতকাল সিজার হয়েছে, সিজার হওয়ার পর থেকে আজ এখন পর্যন্ত কোন ডাক্তার আসেনি।

এসব বিষয় জানতে চাইলে কর্তব্যরত ডাক্তার ফাতেমাতুজ জোহরা মুক্তা জানান, এই হাসপাতালে সব ধরনের চিকিৎসা ব্যবস্থা নাই। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে মিডফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়। রোগী সেখানেই মারা যায়। তবে মিডফোর্ড হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক বলেছেন, রোগী আগেই মারা গেছে।

এ ঘটনায় নিহত সুমির পরিবার মেরি স্টোপস ক্লিনিকের বিরুদ্ধে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।