ঢাকা, শুক্রবার ২৮, ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৮:৫৩:০১ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
এবার করোনায় আক্রান্ত ইরানের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবার পাকিস্তানে করোনাভাইরাসের হানা খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ মশা যেন ভোট খেয়ে না ফেলে, মেয়রদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী করোনা আতঙ্কে সৌদি ভ্রমণ ভিসা স্থগিত

শিক্ষার্থীদের গোপনাঙ্গে লাথি পুলিশের, ছেঁড়া হলো হিজাব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৮:০২ পিএম, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ বৃহস্পতিবার

শিক্ষার্থীদের গোপনাঙ্গে লাথি পুলিশের, ছেঁড়া হলো হিজাব

শিক্ষার্থীদের গোপনাঙ্গে লাথি পুলিশের, ছেঁড়া হলো হিজাব

দিল্লি পুলিশের বিরুদ্ধে ভয়ঙ্কর শারীরিক নির্যাতন করার অভিযোগ তুলেছেন দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আজ বৃহস্পতিবার ২০ জামিয়া শিক্ষার্থীদের করা এক সংবাদ সম্মেলনের বরাত দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে ভারতীয় সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভি।

জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, গত ১০ ফেব্রুয়ারি সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসির বিরুদ্ধে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রতিবাদ মিছিল বের করে সংসদ ভবনের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাদের পথ আটকে অকথ্য নির্যাতন চালায় পুলিশ।  মিছিলে সামিল প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের গোপনাঙ্গে লাথি মারে এবং ছাত্রীদের হিজাব ছিড়ে ফেলে। কয়েকজন জামিয়া শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দিল্লি পুলিশের কর্মীদের বাকবিতণ্ডা থেকে হাতাহাতি পর্যন্ত হয়।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, তাদের প্রতিবাদ মিছিল রুখতেই পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র করে হামলা চালিয়েছে দিল্লি পুলিশ।

একজন আহত নারী ছাত্রী অভিযোগ করে বলেন, ‘যখন আমি দেখলাম আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্রকে ব্যাপক মারধর করছে পুলিশ, তখন আমি ওদের সাহায্য করার জন্যে ছুটে আসি। আমি যখন ব্যারিকেড পার হচ্ছিলাম, তখন কয়েকজন মহিলা পুলিশ আমাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেন। একজন পুরুষ পুলিশ কর্মী আমার গোপনাঙ্গে লাথি মারলে আমি সেখানেই অজ্ঞান হয়ে যাই।’

তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, প্রতিবাদকারীদের বিরুদ্ধে কোনো বল প্রয়োগ করা হয়নি।

দক্ষিণ-পূর্ব দিল্লির ডিসিপি আরপি মীনা বলেন, ‘আমাদের বিরুদ্ধে করা সব অভিযোগ মিথ্যা। পুরো প্রতিবাদের ছবি আমাদের কাছে ভিডিওতে তোলা আছে। বরং আমাদেরই কয়েকজন পুরুষ পুলিশ কর্মী হেনস্থার শিকার হয়েছেন এবং আহত হয়েছেন। প্রতিবাদীদের ওপর কোনো বলপ্রয়োগ করা হয়নি।’