ঢাকা, সোমবার ২২, জুলাই ২০১৯ ১৮:৩২:১২ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
শিরোনাম
মিন্নির জবানবন্দি প্রত্যাহার ও চিকিৎসার আবেদন নামঞ্জুর বন্যার্তদের সহায়তা করতে ঢাবিতে কনসার্ট আজও ঢাবির ফটকে তালা, ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ মাগুরায় স্ত্রী-সন্তানকে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যার চেষ্টা

সন্তানকে আত্মবিশ্বাসী করতে মায়ের ভূমিকা

অনলাইন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৩:২৫ পিএম, ৮ জুলাই ২০১৯ সোমবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সকল মা বাবার কাছেই তাদের সন্তান সব থেকে আদরের। সন্তানের মঙ্গলের জন্য তাদের কত না চেষ্টা। তবে সন্তানকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলতে সব থেকে বেশি অবদান থাকে মায়ের। গবেষণায় দেখা গেছে শিশুরা মায়েদের কাছ থেকে শেখে মূল্যবোধ, অপরকে ভালোবাসা, শেয়ার করা এই ব্যাপারগুলো।

মায়েরা যেহেতু জন্মের পর থেকে শিশুদের সবচেয়ে কাছে থাকে তাই শিশুর বয়স ৪-৫ বছর হওয়ার আগেই এই গুণের অনেক কিছুই মায়ের কাছ থেকে শেখে।

অন্যদিকে বাবার কাছে শেখে অপরকে সম্মান করা, মেয়েদের প্রতি সম্মান, দায়িত্ববোধ ইত্যাদি। সন্তানের সম্পূর্ণ বিকাশের জন্য তাই মা-বাবা দুজনের সমান ভূমিকা এবং সমান দায়িত্ব আছে।

মা যেভাবে সন্তানকে আত্মবিশ্বাসী করতে পারেন

শিশুকে অল্প বয়স থেকেই দায়িত্ব নিতে শেখান। নিজের রুম গুছিয়ে রাখা, নিজের জিনিসপত্র ঠিক মতো রাখা, নিজের খাবার নিজে খাওয়া, গোসল করা ইত্যাদি যেন আপনার শিশু ৩-৪ বছর বয়সেই নিজে নিজে করতে শেখে।

শিশুর সাথে সময় কাটান। তাকে গল্পের বই পড়ে শুনানো, একসাথে কিছু তৈরি করা, স্কুলে আজকে কি হলো সেই গল্প করা ইত্যাদি নানাভাবে আপনি তাকে সময় দিতে পারেন।

শিশুদের কাজের প্রশংসা করতে হবে। ধরুন তাকে কিছু নিয়ে আসতে বললেন, শিশুটি নিয়ে আসলো, তার কাজের জন্য প্রশংসা করুন, উৎসাহিত করুন।

অবশ্যই খাবার টেবিলে একসাথে সবাই মিলে খান। খেতে খেতে গল্প করুন পরিবারের সবাই মিলে। গবেষণায় দেখা গেছে যেসব পরিবার একসাথে খাবার খায় তাদের সন্তানরা বড় হয়ে পারিবারিক জীবনে সুখি ও আত্মবিশ্বাসী হয়।

কখনো নিজের শিশুকে অন্যর শিশুর সাথে তুলনা করবেন না। ছোটবেলা থেকে অপরের সাথে তুলনা করা শিশুকে বড় হয়ে সুখি এবং আত্মবিশ্বাসী হওয়ার সুযোগ কমিয়ে দেয়। শিশুকে ইচ্ছার স্বাধীনতা দিন। কিন্তু যা করা তার জন্য খারাপ সেটি করা থেকে বিরত রাখুন। মায়েরা সন্তানের মডেল। বাসার কাজের মেয়েটার সাথে ভাল ব্যবহার করুন, সন্তানও তাকে সম্মান দিবে।

-জেডসি