ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৭, জানুয়ারি ২০১৯ ২৩:৪৫:৫০ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
শিরোনাম
সন্ত্রাস-মাদক-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে `জিরো টলারেন্স` : প্রধানমন্ত্রী জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে অফিস করছেন প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর নামে ফেসবুক খুলে প্রতারণা, গ্রেফতার ৫ পরীক্ষায় নকল রোধে আসছে আধুনিক প্রযুক্তি অনাস্থা ভোটে টিকে গেলেন থেরেসা মে বঙ্গমাতা আন্তর্জাতিক নারী ফুটবলের স্পন্সর ‘কে-স্পোর্টস’ জাতিসংঘের এক-তৃতীয়াংশ নারীকর্মী যৌন হয়রানির শিকার মুসলিম উম্মাহকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর সংরক্ষিত আসনে ত্যাগী-রাজপথে সক্রিয়দের প্রাধান্য : কাদের জমতে শুরু করেছে বাণিজ্যমেলা, ছাড়ের ছড়াছড়ি

সবজির দাম কমেছে, স্বস্তিতে ক্রেতা

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০১:০৪ পিএম, ৭ ডিসেম্বর ২০১৮ শুক্রবার

শীতের সবজির দাম কমায় স্বস্তিতে ক্রেতারা।তারা বলছেন, বাজারে সবজির দাম আগের তুলনায় কিছুটা কমেছে। ব্যবসায়ীদের বলছেন, সবজির দাম আরো কমে আসবে।  এদিকে মাছ-মাংসের দাম স্বাভাবিক রয়েছে। 

 

আজ শুক্রবার রাজধানীর বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি পাকা টমেটো ৮০ টাকা, কাঁচা টমেটো ৭০ থেকে ৮০ টাকা, শিম ৫০ থেকে ৬০ টাকা ও শসা ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।  এছাড়া প্রতি কেজি বেগুন ৪০ থেকে ৫০ টাকা, শসা ৫০ টাকা, ঢেঁড়স, পটল ৫০ থেকে ৬০ টাকা, বরবটি ৫০ টাকা, কচুর লতি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, ঝিঙ্গা ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, করল্লা ৪০, চিচিঙ্গা ৪০ টাকা, কাঁকড়ল ৩৫ থেকে ৬০ টাকা, বড় দেশি পেঁয়াজ ৫৫ টাকা, মাঝারি দেশি পেঁয়াজ ৫০ টাকা এবং বড় ভারতীয় পেঁয়াজ ৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।


 
প্রতি পিস বাঁধাকপি ও ফুলকপি ২৫ থেকে ৩০ টাকায়, লাউ ৪০ থেকে ৫০ টাকায় এবং জালি কুমড়া ৩০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি আঁটি কলমি শাক ও লাল শাক ১০ থেকে ১৫ টাকায়, লাউ শাক ২০ থেকে ২৫ টাকায়, পালং শাক ১৫ টাকায়, পুঁই শাক ১৫ থেকে ২০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। মিষ্টি কুমড়ার ফুল বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা মুঠো। শাপলা প্রতি মুঠি ৩০ টাকা থেকে ৪০ টাকা। কাচা মরিচ ৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।


 
রাজধানীর খুচরাবাজারে মোটা চাল ইরি/স্বর্ণা প্রতি কেজি ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, মাঝারি মানের চাল পাইজাম/লতা ৫০ থেকে ৫৫ টাকা ও সরু চাল নাজিরশাইল/মিনিকেট ৬০ থেকে ৬৮ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে চালের দাম আরও বাড়তে পারে জানান চাল ব্যবসায়ীরা। যদিও এর কোন যুক্তি তারা দেখাতে পারেনি।

 

 
মাছের বাজারে মাছের দাম বাড়তির দিকে। প্রতিকেজি রুই ও কাতলা ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১৬০-১৭০ টাকা, শিং মাছ আকারভেদে ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা, পাবদা ৬০০ টাকা, পাঁচমিশালী ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, কাচকি মাছ ২৫০ -২৬০ টাকা,টাকি মাছ ৩৫০ টাকা, চিংড়ি মাছ আকারভেদে ৬০০ থেকে ৮০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আকারভেদে প্রতি কেজি ট্যাংরা মাছ ৩৫০ থেকে ৫৫০ টাকা,  চিংড়ি ৫০০ থেকে ৯০০ টাকা, পাঙ্গাস ১২০ থেকে ১৪০ টাকা, কৈ ১৬০ থেকে ২০০ টাকা, তেলাপিয়া ১২০ থেকে ১৬০ টাকা, কাচকি ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা, মলা ২৭০ টাকা থেকে ৩৫০ টাকা, নলা ১৫০ থেকে ১৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। 
 


মাংসের বাজারে গরুর মাংস ৫শ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। তবে বিক্রেতারা বলছেন, ‘ আসন্ন কুরবানীর ঈদের আগে গরুর মাংসের দাম আবারো বেড়ে যাবে। এদিকে খাসির মাংস ৭শ ও বরকির মাংস ৬শ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। মুরগির মাংসের দামের মধ্যে বয়লার মুরগির মাংস দেড়শ টাকা, লাল লেয়ার মুরগির মাংস ২শ ৬০ টাকা হয়েছে। আর কক মুরগির মাংস ২শ ৭০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।