ঢাকা, সোমবার ২২, জুলাই ২০১৯ ১৭:৪১:১৮ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
শিরোনাম
মিন্নির জবানবন্দি প্রত্যাহার ও চিকিৎসার আবেদন নামঞ্জুর বন্যার্তদের সহায়তা করতে ঢাবিতে কনসার্ট আজও ঢাবির ফটকে তালা, ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ মাগুরায় স্ত্রী-সন্তানকে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যার চেষ্টা

‘সিপিএমের হার্মাদরাই এখন বিজেপির ওস্তাদ’: মমতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১১:৫৭ পিএম, ২২ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার

‘মাঝখানে রামবাবু, একপাশে শ্যামবাবু অন্যপাশে বামবাবু৷’ পূর্ব-বর্ধমানের পূর্বস্থলীতে ভোট প্রচারে গিয়ে সিপিএম-বিজেপি-কংগ্রেসকে একযোগে আক্রমণ করেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর কথায়, ‘সিপিএমের হার্মাদরাই এখন বিজেপিতে যোগ দিয়ে ওস্তাদগিরি করছে৷ ওদেরকে বিশ্বাস করবেন না৷ ওরা ভোট পাখি৷ ভোট এলেই মুখে প্রতিশ্রুতির বন্যা, আর ভোট মিটলেই উধাও৷’

এদিন রাজ্যে বেশ কয়েকটি সভা করেন বিজেপির অমিত শাহ ও উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ তাঁরা দুজনেই তৃণমূল নেত্রীকে আক্রমণ করেন৷ কারণ এবারের লোকসভায় বিজেপির পাখির চোখ বাংলা৷ তৃণমূল কংগ্রেসের থেকে বিজেপি বেশ কয়েকটি আসন ছিনিয়ে নেওয়ার লড়াইয়ে মেতেছে৷ তবে কট্টর তৃণমূল নেত্রী মমতাও৷ জামালপুরের জনসভা থেকে এদিন তৃণমূল নেত্রী বিজপিকে উৎখাত করার হুঙ্কার তোলেন৷ তৃণমূল সরকারের উন্নয়নমূলক প্রকল্পের খতিয়ান দিয়ে বর্ধমানের মানুষকে বুঝিয়ে দেন এবারের লোকসভায় বিজেপিকে একটাও ভোট নয়৷

বিজেপি দেশের সর্বনাশ করছে৷ অসমের এনআরসি, হিন্দু-মুসলমানে বিবাদ সৃষ্টি থেকে নোটবন্দী সমস্ত ইস্যুতেই এদিন মোদীর বিজেপি সরকারকে নিশানা করেন মমতা৷ মমতার কথায়, ‘অসমে এনআরসির নামে ৪০ লক্ষ বাঙালির নাম বাদ পড়েছে৷ বিভিন্ন জায়গা হিন্দু-মুসলমান জিগির তুলে মানুষে মানুষে দাঙ্গা লাগিয়ে দিচ্ছে৷ এই তো বিজেপি৷’ শুধু তাই নয়, নোটবন্দীকে বিজেপির কেলেঙ্কারি বলে এদিন উল্লেখ করেন তৃণমূল নেত্রী৷ মমতার কথায়, নোটবন্দীর ফলে কার লাভ হয়েছে? কত টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে তা আমার জানা৷’

শুধু তাই নয়, এদিনের প্রচারে মমতা বিজেপিকে আক্রমণ করতে রামমন্দির প্রসঙ্গ টেনে আনেন৷ মমতার প্রশ্ন, কেন ৫ বছরেও বিজেপি সরকার রামমন্দির তৈরি করতে পারল না? এটাকে তৃণমূল নেত্রী মোদীর ব্যর্থতা হিসেবেই ব্যাখ্যা করেছেন৷ বিজেপি ভোটের সময় রামমন্দির নিয়ে সরব হয়৷ কিন্তু যেখানে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে স্ট্যাচু অফ ইউনিটি তৈরি হল তবে রামমন্দির নয় কেন? মমতার কথায়, হিন্দু ধর্ম ও হিন্দুদের নিয়ে বড় বড় কথা বলার অধিকার নেই মোদীবাবুর৷ ভোটের সময় শুধু প্রতিশ্রুতির ডালি নিয়ে আসে৷ আর ভোট মিটলেই কর্পূরের মতো ভ্যানিশ হয়ে যায়৷

এদিন আরএসএস-কেও নিশানা করেন মুখ্য়মন্ত্রী৷ তাঁর কথায়, ‘আরএসএস বস্তা বস্তা টাকা এনে বিলোচ্ছে৷ ভোট কেনার জন্য টাকা বিলোচ্ছে ওরা, আমার কাছে খবর আছে৷’ তাই বর্ধমানের মানুষকে সাবধান করে দেন তৃণমূল নেত্রী৷ টাকার বিনিময়ে মানুষ যেন হার্মাদ, দাঙ্গাবাজদের কাছে বিকিয়ে না যায় সেই আবেদনই করেন তিনি৷