ঢাকা, সোমবার ১৪, অক্টোবর ২০১৯ ২১:২৭:২৩ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
সাংবাদিক দিল মনোয়ারা মনুর মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক সর্বকনিষ্ঠ হিসেবে অর্থনীতিতে নোবেল পেলেন দুফলো কড়া নিরাপত্তায় বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত জাপানে টাইফুনের আঘাতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩৫ বিশিষ্ট সাংবাদিক দিল মনোয়ারা মনু আর নেই

‘সিপিএমের হার্মাদরাই এখন বিজেপির ওস্তাদ’: মমতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১১:৫৭ পিএম, ২২ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার

‘মাঝখানে রামবাবু, একপাশে শ্যামবাবু অন্যপাশে বামবাবু৷’ পূর্ব-বর্ধমানের পূর্বস্থলীতে ভোট প্রচারে গিয়ে সিপিএম-বিজেপি-কংগ্রেসকে একযোগে আক্রমণ করেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর কথায়, ‘সিপিএমের হার্মাদরাই এখন বিজেপিতে যোগ দিয়ে ওস্তাদগিরি করছে৷ ওদেরকে বিশ্বাস করবেন না৷ ওরা ভোট পাখি৷ ভোট এলেই মুখে প্রতিশ্রুতির বন্যা, আর ভোট মিটলেই উধাও৷’

এদিন রাজ্যে বেশ কয়েকটি সভা করেন বিজেপির অমিত শাহ ও উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ তাঁরা দুজনেই তৃণমূল নেত্রীকে আক্রমণ করেন৷ কারণ এবারের লোকসভায় বিজেপির পাখির চোখ বাংলা৷ তৃণমূল কংগ্রেসের থেকে বিজেপি বেশ কয়েকটি আসন ছিনিয়ে নেওয়ার লড়াইয়ে মেতেছে৷ তবে কট্টর তৃণমূল নেত্রী মমতাও৷ জামালপুরের জনসভা থেকে এদিন তৃণমূল নেত্রী বিজপিকে উৎখাত করার হুঙ্কার তোলেন৷ তৃণমূল সরকারের উন্নয়নমূলক প্রকল্পের খতিয়ান দিয়ে বর্ধমানের মানুষকে বুঝিয়ে দেন এবারের লোকসভায় বিজেপিকে একটাও ভোট নয়৷

বিজেপি দেশের সর্বনাশ করছে৷ অসমের এনআরসি, হিন্দু-মুসলমানে বিবাদ সৃষ্টি থেকে নোটবন্দী সমস্ত ইস্যুতেই এদিন মোদীর বিজেপি সরকারকে নিশানা করেন মমতা৷ মমতার কথায়, ‘অসমে এনআরসির নামে ৪০ লক্ষ বাঙালির নাম বাদ পড়েছে৷ বিভিন্ন জায়গা হিন্দু-মুসলমান জিগির তুলে মানুষে মানুষে দাঙ্গা লাগিয়ে দিচ্ছে৷ এই তো বিজেপি৷’ শুধু তাই নয়, নোটবন্দীকে বিজেপির কেলেঙ্কারি বলে এদিন উল্লেখ করেন তৃণমূল নেত্রী৷ মমতার কথায়, নোটবন্দীর ফলে কার লাভ হয়েছে? কত টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে তা আমার জানা৷’

শুধু তাই নয়, এদিনের প্রচারে মমতা বিজেপিকে আক্রমণ করতে রামমন্দির প্রসঙ্গ টেনে আনেন৷ মমতার প্রশ্ন, কেন ৫ বছরেও বিজেপি সরকার রামমন্দির তৈরি করতে পারল না? এটাকে তৃণমূল নেত্রী মোদীর ব্যর্থতা হিসেবেই ব্যাখ্যা করেছেন৷ বিজেপি ভোটের সময় রামমন্দির নিয়ে সরব হয়৷ কিন্তু যেখানে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে স্ট্যাচু অফ ইউনিটি তৈরি হল তবে রামমন্দির নয় কেন? মমতার কথায়, হিন্দু ধর্ম ও হিন্দুদের নিয়ে বড় বড় কথা বলার অধিকার নেই মোদীবাবুর৷ ভোটের সময় শুধু প্রতিশ্রুতির ডালি নিয়ে আসে৷ আর ভোট মিটলেই কর্পূরের মতো ভ্যানিশ হয়ে যায়৷

এদিন আরএসএস-কেও নিশানা করেন মুখ্য়মন্ত্রী৷ তাঁর কথায়, ‘আরএসএস বস্তা বস্তা টাকা এনে বিলোচ্ছে৷ ভোট কেনার জন্য টাকা বিলোচ্ছে ওরা, আমার কাছে খবর আছে৷’ তাই বর্ধমানের মানুষকে সাবধান করে দেন তৃণমূল নেত্রী৷ টাকার বিনিময়ে মানুষ যেন হার্মাদ, দাঙ্গাবাজদের কাছে বিকিয়ে না যায় সেই আবেদনই করেন তিনি৷