ঢাকা, শুক্রবার ২৫, সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৬:০৫:১২ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
দেশে করোনায় প্রাণ গেল আরও ২১ জনের বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথেই সরকার কূটনীতি পরিচালনা করছে: প্রধানমন্ত্রী ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক দেনা-পাওনার ঊর্ধ্বে: রীভা গাঙ্গুলি করোনা-প্রাকৃতিক দুর্যোগের সংকটে বিশ্বের ৫ কোটি মানুষ: রেডক্রস আগামী বছরের শুরুতে মিলবে সিনোভ্যাকের করোনা ভ্যাকসিন বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়িয়েছে ৯ লাখ ৮১ হাজার

সুশান্তর মৃত্যু: সামাজিক মাধ্যমে তোপের মুখে রিয়া

বিনোদন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০২:৩৪ পিএম, ৮ আগস্ট ২০২০ শনিবার

সুশান্তর মৃত্যু: সামাজিক মাধ্যমে তোপের মুখে রিয়া

সুশান্তর মৃত্যু: সামাজিক মাধ্যমে তোপের মুখে রিয়া

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মতো সাধারণ মানুষের কাছে সুপরিচিত ছিলেন না তার বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী। বলিউডের এই অভিনেতার মৃত্যুর পরেই রিয়া চক্রবর্তীর নাম জানতে পারেন সাধারণ মানুষ। গণমাধ্যম আর সামাজিক মাধ্যমগুলোয় প্রকাশ পেতে থাকে মডেল ও অভিনেত্রী বাঙালি নারী রিয়ার নাম।

প্রশ্ন তোলা শুরু হয় তিনি কেন সামনে আসছেন না! জাতীয় টিভি চ্যানেলগুলি প্রচার করতে শুরু করে, 'কোথায় রিয়া' ইত্যাদি শিরোনাম।

আর কিছুদিন পর থেকে তার দিকেই আঙ্গুল তোলা শুরু হয়, যে তিনিই আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছেন সুশান্তকে। অভিযোগ ওঠে সুশান্তের মৃত্যুর পর তার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১৫ কোটি টাকা সরিয়ে নিয়েছেন তিনি।

একদিকে যখন অভিযোগ তোলা হচ্ছে, অন্যদিকে রিয়া চক্রবর্তীকে একেবারেই দোষী বলে বিচার করে ফেলা হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে।

তাকে 'হত্যাকারী', গোল্ড-ডিগার', 'উইচ' বা ডাইনি, ইত্যাদি বিশেষণে ভূষিত করা হতে থাকে, অন্যদিকে কেউ আবার তাকে ধর্ষণ করার হুমকি দেয় কেউবা আবার রিয়াকে আত্মহত্যা করতে নির্দেশ দেয়।

সুশান্তের মৃত্যুর প্রায় দেড় মাস পরে তার বাবা বিহার পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন রিয়া এবং তার পরিবার এবং আরও কয়েকজনের নামে। অভিযোগ দুটি: এক, তারাই সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছেন। আর দুই, তিনি মারা যাওয়ার পরে ব্যাঙ্ক থেকে টাকা সরিয়েছেন।

বিহার পুলিশ আর মুম্বাই পুলিশের মধ্যে তদন্ত নিয়ে শুরু হয় অভূতপূর্ব টানাপড়েন। এরপরেই বিহার সরকার আবেদন করে যে এই মৃত্যুর তদন্ত করুক কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো বা সিবিআই।

কেন্দ্রীয় সরকার তাতে সায় দেয়ার পর তদন্ত ভার তুলে দেওয়া হয়েছে সিবিআইয়ের হাতে।