ঢাকা, সোমবার ২৭, সেপ্টেম্বর ২০২১ ২১:১৭:৩২ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

গ্রীষ্মে ফুটেছে নয়নাভিরাম ফুল

নিজস্ব প্রতিবেদক

উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০২:১১ পিএম, ১ মে ২০২১ শনিবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে চলমান লকডাউনে রাজধানীতে প্রকৃতি সেজেছে নানা রং আর রূপে। কোভিডের বিষাক্ত বাতাসে সুবাস ছড়াচ্ছে কৃষ্ণচূড়া, রাধাচূড়া ও কনকচূড়াসহ নানা রঙের ফুল। এ যেন গ্রীষ্মের তপ্ত প্রকৃতিতে ফাগুন শেষে আগুন লেগেছে। পরিবেশবিদরা বলছেন, নগরীর এমন সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে পরিকল্পিতভাবে বনায়ন করতে হবে।

করোনার ভয়াবহতার মধ্যে হঠাৎ রাজধানীতে দাবদাহ, গুমোট এমন অবস্থার মধ্যেও প্রকৃতি যেন বিকশিত হচ্ছে আপন মনে। জারুল, লাল সোনাইল, সোনালু-সহ গ্রীষ্মকালীন সব ফুল সুবাস ছড়িয়ে যাচ্ছে আনমনে। রাজধানীর হাতিরঝিলে কৃষ্ণচূড়ার লাল আগুন চোখে পড়ার মতো। লকডাউনের খপ্পরে ভয়ার্ত রাজধানীতে এ আগুন যেন নিজের মতো করে শোভা ছড়াচ্ছে। করোনার মন খারাপের সময়ে নীরবে সৌন্দর্য বিলাচ্ছে বাহারি রংয়ের ফুল।

মিন্টু রোডে আকাশ দখল করে হলদে মুকুটে সেজেছে কনকচূড়া। ফুল কুড়ানির অপেক্ষায় নিঃশব্দে ঝরে পথে লুটাচ্ছে পাপড়িগুলো। বাগান বিলাসের বিলাসীভাব নাগরিক জীবনকে করেছে আরও উজ্জ্বল।

বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি’র (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান বলছেন, আমরা কেন এই নগরীতে ফুলের আগুন লাগাতে পারব না। আমাদের নগরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থাগুলো আছেন তারা যদি গাছ লাগানোর ক্ষেত্রে রঙিন ফুল দেয় বা ফলজ বা ঔষধি গাছ লাগায় তাহলে সম্ভব হবে। এতে পরবর্তী প্রজন্মগুলোর সঙ্গে গাছগুলোর পরিচিতি বাড়বে এবং সেই সঙ্গে নগরের সৌন্দর্য অনেকগুণ বৃদ্ধি পাবে।

করোনা একসময় বিদায় নেবে। চেনা-রূপে ফিরবে কংক্রিটের ছাই রঙের এ শহর। তাই পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এখনই সময় প্রাণের শহরের প্রতি যত্নবান হতে।

-জেডসি