ঢাকা, মঙ্গলবার ০৭, ডিসেম্বর ২০২১ ১৫:৪৯:০৮ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

সুযোগ দাও, উঠে দাঁড়াবো: রুনা আহমাদ 

রুনা আহমাদ 

উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১২:৪৪ পিএম, ১১ জুন ২০২১ শুক্রবার

রুনা আহমাদ, স্বত্বাধিকারী: হোমমেড দেশি পণ্য।

রুনা আহমাদ, স্বত্বাধিকারী: হোমমেড দেশি পণ্য।

আমি শুধুমাত্র একজন নারী নই, একজন বাবার মেয়ে, কারো বোন, একজন স্বামীর স্ত্রী এবং আমার সন্তানেরও মা আমি। সেই সাথে একজন উদ্যোক্তা। 

সবার আগে আমি একজন মানুষ।  আমি প্রচুর কাছ করি। তাই ভুল আমিও করি। ভুলের উর্ধ্বে নই আমি, আমার কোন ভুল কাজ বা ভুল আচরণ ধরা পড়লে আমাকে ধরিয়ে দেবেন, আমি শুধরে নেবো, আর না পারলে বিনয়ের সাথে ক্ষমা চেয়ে নেবো। 

আপনারা নিজেদের নিয়ে যেমন স্বপ্ন দেখেন, তেমন কিছু স্বপ্ন আমিও দেখি। আকাশকে ছুঁয়ে দেখার ইচ্ছে আমারও হয়। 
আমার মতো অনেক অনেক স্বপ্ন দেখা উদ্যমী নারী'রা আছেন। তারা এগিয়ে যেতে চান লক্ষ্যের দিকে। স্বপ্ন পূরণের দিকে। এখানে আপনাদের সহযোগীতাপূর্ণ মনোভাব সবচেয়ে বেশি দরকার। কেউ যদি আমার মতো কাউকে সহযোগিতা করতে না পারেন অসুবিধা নেই, অন্তত কারো থেমে যাওয়ার কারণ হবেন না। 

আমরা নারীরা ভোর থেকে রাত অব্দি সংসার সামলাই, রান্না বান্না থেকে শুরু করে সন্তানের লেখাপড়া সহ সব সাংসারিক চাহিদা পূরণ করি। 

এরপরে যদি আমি স্বনির্ভরতার জন্য, ঘরের দেয়ালের মাঝে থেকে কিছু একটা করতে চাই, তাতে কার ক্ষতি? একটা নিজের পরিচয় থাকাটা কী খুব অন্যায়? 

নারীরা পরগাছা নয়। অথচ এক শ্রেণীর মানুষ সেটাই ভাবে এবং সেভাবেই রাখতে চায়। 

অনেকের স্বভাব হচ্ছে প্রয়োজন ছাড়া ছুঁচো ও বেড়ালের মতো ঘাটাঘাটি করা। (মাফ করবেন, কিছু মানুষরূপি বাঁদরদের জন্য বললাম এটা) 

ইনবক্সে অপ্রয়োজনে 'হায়' 'হায়' বলে খোঁচাখুচি করেন অনেকে।তাদের বায় বায় বলে ব্লক বা আনফ্রেন্ড করে দিতে দেরি করা উচিত না। 

পক্ষান্তরে কেউ আমাদের সম্মান দিলে তার সাথে আমাদের আচরণের সেরাটাই দেই আমরা। নারীরা এমনই হয়। 

আমরা মায়ের জাত। আমরা একই সাথে আদর মমতা যেমন ধারন করি, তেমনি ধারণ করি আত্মসম্মান বোধ। তাই এটাকে খাটো করতে আসবেন না কেউ। 

আমি এক সময় প্রাইভেট স্কুলে শিক্ষকতা করতাম। আমার দুটি মেয়ের দেখভালের কমতি হয় বলে কন্টিনিউ করতে পারিনি। কিন্তু বসে থাকাটাও সহজ না আমার জন্য। বলতে দ্বিধা নেই, মধ্যবিত্ত পরিবারে একজনের আয়ে সচ্ছলতা আসে না। তাই ঘরে বসে "হোমমেড দেশি পণ্য" নামে বাসায় তৈরি ঘরোয়া খাবার প্রস্তুত করার একটি উদ্যোগ নিয়। আর কাজ শুরু করি আনন্দের সাথে। 

আমার মতো অসংখ্য নারীর এমন কিছু না কিছু করছে। আমি এমন অনেক নারীকে সাথে নিয়ে তাদেরকে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে ই কমার্স এক্সপ্রেস বাংলাদেশ নামে তৈরি করেছি একটি ই কমার্স গ্রুপ। 

যেখানে ইতিমধ্যে প্রায় দু হাজার উদ্যোক্তা, ৯০ ভাগ নারী তাদের স্বপ্ন পূরনে কাজ করছেন। ঘরে বসে সংসার সামলানোর পাশাপাশি উদ্যোক্তা হিসেবে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছেন বিভিন্ন ধরনের পণ্য নিয়ে। যা দেশের অর্থনীতিতেও ভূমিকা পালন করছে। দিন দিন বাড়ছে আমার মতো নারী উদ্যোক্তাদের সংখ্যা। 

সবার জন্য সহযোগী হোন। তারা এগিয়ে যাবে। আমরা এগিয়ে যাবো। একটা সম্পূর্ণ নিজের পরিচয় নিয়ে সামনের পথে যাবো আমরা। যা প্রতিটি নারীর একান্ত দরকার।

রুনা আহমাদ, স্বত্বাধিকারী: হোমমেড দেশি পণ্য।