ঢাকা, শুক্রবার ২৭, নভেম্বর ২০২০ ২:৩৭:৪০ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
দেশে করোনায় মৃত্যু সাড়ে ৬ হাজার ছাড়াল করোনার ভ্যাকসিন আসার সাথে সাথেই বাংলাদেশ পাবে: প্রধানমন্ত্রী বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃত্যু প্রায় ১৪ লাখ ২০ হাজার প্রথমবার বিমান বাহিনীতে ৬৪ নারী সৈনিক ৭ কোটি করোনার ভ্যাকসিন পাচ্ছে বাংলাদেশ ম্যারাডোনা ফুটবলপ্রেমীদের কাছে চিরস্মরণীয়: শেখ হাসিনা

করোনা প্রতিষেধক ফাইজার ও মডার্না নিয়ে আশাবাদী গবেষকগণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১২:৩৬ পিএম, ২৯ অক্টোবর ২০২০ বৃহস্পতিবার

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট

করোনার প্রতিষেধক টিকার স্বপ্ন দেখছে বিশ্ববাসী। এর মধ্যে কয়েকটি টিকার পরীক্ষা চূড়ান্ত ধাপে রয়েছে। ফলাফলের অপেক্ষায় রয়েছে সবাই। টিকা তৈরিতে সামনের সারিতে থাকা দুই প্রতিষ্ঠান মডার্না ও ফাইজার কয়েক সপ্তাহ পরেই তাদের টিকার ফলাফল পাওয়ার আশা করছে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ডিসেম্বরের মধ্যেই করোনার টিকা পাওয়ার আশা বেড়েছে।

মডার্না ও ফাইজারের টিকা ছাড়াও অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রোজেনেকার টিকাটি নিয়েও আশার কথা শোনা যাচ্ছে। এ টিকাটি বয়স্ক ও তরুণদের মধ্যে প্রতিরোধী সক্ষমতা দেখিয়েছে বলে অ্যাস্ট্রোজেনেকার গবেষকেরা দাবি করেছেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দুর্দান্ত গতিতে টিকা তৈরির কাজ এগিয়ে চলেছে। যেখানে টিকা তৈরিতে ১০ থেকে ১৫ বছর সময় লেগে যায় সেখানে দ্রুত টিকা বাজারে পাওয়ার আশা করা যাচ্ছে। তবে যুক্তরাজ্যের ভ্যাকসিন টাস্কফোর্স সংশয় প্রকাশ করে বলেছে, প্রথম প্রজন্মের টিকা সবার জন্য সমান কার্যকর নাও হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে এখন ১৫০টির বেশি টিকা উন্নয়নের পর্যায়ে রয়েছে। এর মধ্যে ৪৪ টি টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে। ১১ টি টিকা পরীক্ষার চূড়ান্ত ধাপে রয়েছে।

মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি ফাইজার এর আগে বলেছিল তারা অক্টোবরের মধ্যেই করোনার টিকার ফল জেনে যাবে। কিন্তু এখন তারা আশা প্রকাশ করে বলেছে, এ বছরের মধ্যে তাদের টিকার ফল জানা যেতে পারে।

ফাইজারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) অ্যালবার্ট বোরলা বলেছেন, ‘টিকা অনুমোদন পাওয়ার বিষয়টি কয়েকটি বিষয়ের ওপর নির্ভর করছে। এর মধ্যে রয়েছে টিকার কার্যকারিতা জানার বিষয়টি। আমরা চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে গেছি। যদি সবকিছু ঠিকমতো চলে আমরা প্রাথমিক ডোজ সরবরাহ করার জন্য প্রস্তুত থাকব।’

বোরলা এ বছরের মধ্যেই করোনার টিকা সরবরাহের সম্ভাবনা নিয়ে পরিমিত আশাবাদ প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেছেন, টিকার কার্যকারিতা মূল্যায়নের ক্ষেত্রে এখনো ফাইজার মূল মানদণ্ডে পৌঁছেনি। তারা নভেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে টিকাটির জরুরি অনুমোদনের জন্য আবেদন করার কথা ভাবছেন।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে, ফাইজারের পাশাপাশি করোনার টিকা নিয়ে আশার খবর দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের মডার্না। তাদের এমআরএনএ-১২৭৩ টিকাটির ফলাফল আগামী মাসে জানাতে পারবে বলে আশা করছে। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যদি টিকাটির ইতিবাচক ফল পাওয়া যায় তবে ডিসেম্বরের শুরুতে এর জরুরি অনুমোদন মিলতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, কোভিড-১৯ টিকা নিয়ে যেসব সুখবর পাওয়া যাচ্ছে তা ই স্বাগত জানাচ্ছে সংস্থাটি। তবে টিকাটি ব্যাপকভাবে পাওয়ার ক্ষেত্রে সময় লাগতে পারে বলেও সতর্ক করেছে সংস্থাটি।

-জেডসি