ঢাকা, শনিবার ০৬, জুন ২০২০ ২৩:২৪:৫৯ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
রাজধানীতে করোনা চিকিৎসায় ৩শ শয্যার হাসপাতাল উদ্বোধন চট্টগ্রামে করোনা চিকিৎসায় মা ও শিশু হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু শুধু ঢাকাতেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৭ লাখ : দ্য ইকোনমিস্ট পল্লবীতে নারীর হাত-পা বাঁধা মরদেহ উদ্ধার সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন হাসপাতালে ভর্তি ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস কাল

পশ্চিমবঙ্গে আম্পানে ৭২ জনের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৬:৩২ পিএম, ২১ মে ২০২০ বৃহস্পতিবার

পশ্চিমবঙ্গে আম্পানে ৭২ জনের মৃত্যু

পশ্চিমবঙ্গে আম্পানে ৭২ জনের মৃত্যু

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ৭২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয় নবান্নে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা নিজে। ঝড়ে নিহতদের পরিবারকে আড়াই লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভারতের সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্থান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, কলকাতায় ১৫ জন, উত্তর ২৪ পরগনায় ১৭ জন ও হাওড়ায় ৭ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এ ছাড়া পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণাঞ্চলের বাকি জেলাগুলো থেকেও মৃত্যুর খবর এসেছে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আম্পানের কারণে ৭২ জনকে আমরা হারিয়েছি। এছাড়া হাজার হাজার ঘরবাড়ি ও গাছপালা ধ্বংস হয়ে গেছে। বৈদ্যুতিক খুঁটি উপড়ে পড়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে। নিম্নাঞ্চলে বন্যা লেগে বিধ্বস্ত হয়ে গেছে। কর্তৃপক্ষ ত্রাণ তৎপরতার জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংকটের মধ্যেও।’

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আম্পানে ক্ষয়ক্ষতির মাত্রা করোনাভাইরাসের চেয়েও বেশি।

তিনি জানান, ঘূর্ণিঝড়ে পশ্চিমবঙ্গে প্রায় ১ লাখ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। দক্ষিণ ও উত্তর ২৪ পরগনা জেলা দুটো প্রায় ধ্বংস হয়ে গেছে। অনেক জায়গায় বিদ্যুৎ নেই।

মমতা বন্দপাধ্যায় বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে বলব, এসে দেখে যান কী পরিস্থিতি।’

বিপর্যয়ের বিবরণ দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এলাকার পর এলাকা ধ্বংস। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। প্রশাসন ৫ লক্ষ মানুষকে সরাতে পেরেছে। ১৭৩৭ সালে এমন ভয়ঙ্কর ঝড় হয়েছিল। ওয়ার রুমে বসে আছি আমি। নবান্নে আমার অফিস কাঁপছে। একটা কঠিন পরিস্থিতির যুদ্ধকালীন মোকাবিলা করলাম।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এই সময়ের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কলকাতায় সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত ৩৭৮টি গাছ উপড়ে পড়ার খবর এসেছে। ঘরবাড়ি ভেঙেছে ৯টি। কলকাতায় অধিকাংশ রাস্তাতেই গাছ পড়ে রয়েছে। বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন হওয়ায় ব্যাহত ট্রাফিক সিগন্যালও। শহর স্বাভাবিক হতে সময় লাগবে। এরই মধ্যে উন্নয়ন কাজ শুরু হয়েছে।