ঢাকা, বুধবার ২৭, জানুয়ারি ২০২১ ১১:৫৮:৩৬ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
বাইডেন প্রশাসনে আরেক বাংলাদেশী নারী করোনার টিকাদান কর্মসূচি শুরু হচ্ছে আজ মেক্সিকোতে করোনায় মৃতের সংখ্যা দেড় লাখ ছাড়িয়েছে কোভিড-১৯ টিকাদান কর্মসূচি কাল শুরু, সব প্রস্তুতি শেষ প্রাথমিক বিদ্যালয় খুলবে ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে

বিবিসির বর্ষসেরা ১০০ নারীর তালিকায় রিনা ও রিমা

অনলাইন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০১:৩৬ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০২০ মঙ্গলবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বিবিসির বর্ষসেরা ১০০ নারীর তালিকায় স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশের দুজন। তারা হলেন রিনা আক্তার ও রিমা সুলতানা রিমু। এবারের এ তালিকা করার সময় বিবিসি যে বিষয়টিতে হাইলাইট করেছে তা হলো, যারা পরিবর্তন আনতে নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং মহামারির এই কঠিন সময়েও তাদের কাজের মাধ্যমে নিজেদের আলাদা করতে সক্ষম হয়েছেন।

দুই বাংলাদেশী নারী ছাড়াও তালিকায় আছেন ফিনল্যান্ডের কোয়ালিশন সরকার যার প্রতিটি সদস্য নারী তার প্রধান স্যান্না ম্যারিন এবং অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনা ভাইরাস টিকা গবেষণা দলের প্রধান সারাহ গিলবার্ট। পাকিস্তানী অভিনেত্রী মাহিরা খান ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর দারিদ্র বিমোচন বিষয়ক বিশেষ সহকারী সানিয়া নিশতার, ভারতের নাগরিকত্ব আইনবিরোধী আন্দোলনে অংশ ৮২ বছর বয়সী বিলকিস বানুসহ আরো অনেকে সুপরিচিত ব্যক্তিত্ব।

বাংলাদেশের রিনা আক্তারের সম্পর্কে বিবিসির বর্ণনায় বলা হয়েছে মাত্র আট বছর বয়সে তার এক আত্মীয় তাকে পতিতালয়ে বিক্রি করে দিয়েছিলো। সেখানেই তিনি বেড়ে ওঠেন ও পরে যৌনকর্মীতে পরিণত হন। কিন্তু এখন তিনি অন্য যৌনকর্মীদের জীবনমানের উন্নয়নে কাজ করছেন। করোনা ভাইরাস মহামারির সময়ে রিনা ও তার টিম ঢাকায় প্রতি সপ্তাহে অন্তত চারশো যৌনকর্মীকে খাবার সরবরাহ করেছেন। এসব যৌনকর্মীরা মহামারির কারণে চরম অর্থনৈতিক দুরাবস্থায় পড়েছেন।

রিনা আক্তার বিবিসিকে বলেছেন, লোকজন আমাদের পেশাকে ছোটো করে দেখে কিন্তু আমরা এটি করি খাবার কেনার জন্য। আমি চেষ্টা করছি যাতে এই পেশার কেউ না খেয়ে থাকে এবং তাদের বাচ্চাদের যেন এ কাজ করতে না হয়।

অন্যদিকে রিমা সুলতানা রিমু একজন শিক্ষক এবং তিনি কক্সবাজার ভিত্তিক ইয়াং উইমেন লিডার্স ফর পিস এর একজন সদস্য। এ কর্মসূচিটি গ্লোবাল নেটওয়ার্ক অব উইমেন পিসবিল্ডার্স এর অংশ যার মূল উদ্দেশ্য সংঘাতসঙ্কুল দেশগুলো থেকে আসা তরুণ নারীদের ক্ষমতায়ন করা যাতে করে তারা নেতৃত্ব দেয়া ও শান্তির এজেন্টে পরিণত হবেন।

রিমা তার মানবিক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেছেন রোহিঙ্গা শরণার্থী পরিস্থিতি মোকাবেলায়। রোহিঙ্গা শরণার্থী বিশেষ করে নারী ও শিশুদের যাদের শিক্ষার সুযোগ নেই তাদের জন্য লিঙ্গ সংবেদনশীল ও বয়সভিত্তিক স্বাক্ষরতা কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন তিনি।

রেডিও ব্রডকাস্ট ও থিয়েটার পারফরম্যান্সের মাধ্যমে তিনি নারী, শান্তি ও নিরাপত্তা বিষয়ে জাতিসংঘের সিদ্ধান্তগুলো সম্পর্কে সচেতনতা তৈরিতেও কাজ করেছেন তিনি। তিনি বিবিসিকে বলেন, আমি বাংলাদেশে লিঙ্গ সমতা আনতে অঙ্গীকারাবদ্ধ। অধিকার আদায়ের জন্য নারীর শক্তিতে আমি বিশ্বাস করি।

এছাড়া উল্লেখ করার মতো আরো যারা আছেন বিবিসি ১০০ নারীতে-

ড. সানিয়া নিশতার: মোবাইল ব্যাংকিং, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এবং এমন আর কিছু মাধ্যমে লাখ লাখ পাকিস্তানীর জীবনমান উন্নত করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ডঃ সানিয়া নিশতার।

মাহিরা খান: পাকিস্তানের অভিনেত্রী। তিনি যৌন সহিংসতার বিরুদ্ধে সোচ্চার। রঙ ফর্সাকারী ক্রিম প্রত্যাখ্যান করা মাহিরা বর্ণবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করাকে সমর্থন করেন। তিনি সামাজিক সমস্যা সংক্রান্ত ইস্যুগুলোকে মোকাবিলা করতে এগুলো সিনেমা ও টিভিতে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করতে আগ্রহী। তিনি জাতিসঙ্ঘ শরণার্থী বিষয়ক হাই কমিশনারের শুভেচ্ছা দূত হিসেবে কাজ করছেন।

বিলকিস বানু: ৮২ বছর বয়সী ভারতের বিলকিস বানু বেশ আলোচনায় এসেছিলেন নাগরিকত্ব আইন সংশোধনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে অংশ নিয়ে।ভারতীয় সাংবাদিক ও লেখক রানা আইয়ুব শাহীনবাগের মুসলিমদের ধারাবাহিক কর্মসূচিতে অংশ নেয়া এই নারীকে ‘প্রান্তজনের কণ্ঠস্বর’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

১০০ নারীর তালিকায় আরো যাদের নাম আছে তাদের মধ্যে আছেন ইথিওপিয়ার ফুটবলার লোজা আবেরা জেইনোর, সিয়েরা লিওনের মেয়র ইয়ভনে আকি সাভিয়্যের, সংযুক্ত আরব আমিরাতের মন্ত্রী সারাহ আল আমিরি, সিরিয়ার চলচ্চিত্র নির্মাতা ওয়াদ আল কাতিয়াব, যুক্তরাষ্ট্রের অভিনেত্রী জেন ফনডা এবং যুক্তরাজ্যের বিজ্ঞানী সারাহ গিলবার্ট। সূত্র: বিবিসি

-জেডসি