ঢাকা, শুক্রবার ২৫, সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৫:২৯:০২ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথেই সরকার কূটনীতি পরিচালনা করছে: প্রধানমন্ত্রী ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক দেনা-পাওনার ঊর্ধ্বে: রীভা গাঙ্গুলি করোনা-প্রাকৃতিক দুর্যোগের সংকটে বিশ্বের ৫ কোটি মানুষ: রেডক্রস আগামী বছরের শুরুতে মিলবে সিনোভ্যাকের করোনা ভ্যাকসিন বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়িয়েছে ৯ লাখ ৮১ হাজার

রুশ বিজ্ঞানীদের দাবি: পানিতেই মরবে করোনা

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০২:২২ পিএম, ৮ আগস্ট ২০২০ শনিবার

রুশ বিজ্ঞানীদের দাবি: পানিতেই মরবে করোনা ভাইরাস

রুশ বিজ্ঞানীদের দাবি: পানিতেই মরবে করোনা ভাইরাস

মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থেকে মুক্তি পেতে ভ্যাকসিন তৈরিতে যখন বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ব্যস্ত বিজ্ঞানীরা, ঠিক সে সময় রাশিয়ার একদল বিজ্ঞানী করোনার একটি বিশেষ দুর্বলতা খুঁজে পেয়েছে বলে দাবি করেছে।

সাইবেরিয়ার নভোসাবিরস্কে ভেক্টর স্টেট রিসার্চ সেন্টার অব ভাইরোলজি অ্যান্ড বায়োটেকনোলজিতে গবেষণারত রুশ বিজ্ঞানীদের দাবি, স্রেফ পানি দিয়ে করোনা ভাইরাসের বৃদ্ধি ঠেকানো যেতে পারে। রুশ সংবাদমাধ্যম স্পুটনিক নিউজ এমন খবর দিয়েছে।

সংবাদমাধ্যম স্পুটনিক নিউজে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, গবেষণায় বিজ্ঞানীরা দেখেছেন, প্রথম ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ঘরের তাপমাত্রায় রাখা পানির সংস্পর্শে এসে মরে যায় করোনার প্রায় ৯০ শতাংশ উপাদান। ৭২ ঘণ্টায় মরে যায় প্রায় ৯৯ দশমিক ৯ শতাংশ। বিজ্ঞানীরা আরও দাবি করেছেন, ফুটন্ত পানির সংস্পর্শে এলে করোনা ভাইরাস সম্পূর্ণভাবে এবং সঙ্গে সঙ্গে নিশ্চিহ্ন হয়।

গবেষণায় আরও উঠে এসেছে, ডিক্লোরিনেটেড বা নোনা জলে করোনা ভাইরাস বংশবৃদ্ধি করতে পারে না। তবে কিছুক্ষণ সক্রিয় থাকতে পারে। সে সময় পানির তাপমাত্রার ওপর নির্ভর করে ভাইরাসের আয়ু। বিজ্ঞানীরা জানান, ক্লোরিনেটেড পানিতেও দ্রুততার সঙ্গে মারা যায় ভাইরাস।

গবেষকদের দেওয়া এই চমকপ্রদ তথ্য প্রকাশ্যে এনেছে রাশিয়ার ভোক্তা সুরক্ষা দেখভালকারী সংস্থা রসপোত্রেবনাদজোর।

অন্যদিকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আগামী অক্টোবরে গণহারে ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করার পরিকল্পনা করছে রাশিয়ার স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ।

রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাশকো জানিয়েছেন, রাজধানী মস্কোর গবেষণা সংস্থা গামালেয়া ইনস্টিটিউট একটি ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শেষ করেছে এবং এটি নিবন্ধনের প্রস্তুতি নিচ্ছে। আমরা আগামী অক্টোবর থেকে বৃহৎ আকারে ভ্যাকসিন প্রয়োগের কাজ শুরু করার পরিকল্পনা করছি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, চলতি মাসেই রাশিয়ার প্রথম সম্ভাব্য ভ্যাকসিন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমোদন পাবে।

এদিকে, গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও কানাডার নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ দাবি করেছিল, তথ্য চুরির উদ্দেশ্যে করোনা ভ্যাকসিন-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছিল রাশিয়ার একটি হ্যাকিং গ্রুপ।