ঢাকা, সোমবার ১০, মে ২০২১ ২:২৮:৫৫ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
খালেদা জিয়া চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে পারছেন না দেশে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় প্রাণহানি ৫৬ মার্কেটে মানুষের ঢল, নেই স্বাস্থ্যবিধির বালাই একটা ঈদ বাড়িতে না করলে কী হয়: প্রধানমন্ত্রী ফেরিঘাটে বিজিবি মোতায়েনের পরও ঘরমুখো মানুষের ঢল কাবুলে বিস্ফোরণে নিহত ৫৫ জনের অধিকাংশই ছাত্রী আজ মা দিবস, মাগো…ওগো দরদিনী মা

লাঠি হাতে দাঁড়িয়ে নারীবাহিনী, করোনার প্রবেশ নিষেধ

অনলাইন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০২:১৭ পিএম, ২৯ এপ্রিল ২০২১ বৃহস্পতিবার

লাঠি হাতে দাঁড়িয়ে নারীবাহিনী, করোনার প্রবেশ নিষেধ

লাঠি হাতে দাঁড়িয়ে নারীবাহিনী, করোনার প্রবেশ নিষেধ

সারাবিশ্বে করোনার আঁচ থেকে রক্ষা পাচ্ছেন না প্রায় কেউই। ভারতের প্রতিটি জেলায়, গ্রামে-গঞ্জে ঢুকে পড়েছে এই সংক্রমণ।
এত কিছুর মধ্যেও এই মহামারি থেকে দূরত্ব বজায় রেখেছে একটি ছোট গ্রাম! করোনা নাকি এখনও ঢুকতেই পারেনি সেখানে।
গ্রামের নাম চিখালার। ভারতের মধ্যপ্রদেশের বেতুল জেলার অন্তর্গত এই গ্রাম। সারা দেশে যখন লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণের সংখ্যা, লাগাম টানা যাচ্ছে না মৃতের সংখ্যাতে, সেই অবস্থায় দাঁড়িয়ে সারা বিশ্বের কাছে নজির তৈরি করেছে এই গ্রাম।
কী ভাবে এই অসম্ভবকে সম্ভব করে তুলল চিখালার? ২০০৯ সালের হিসাব অনুযায়ী, মোট ৮৭টি পরিবারের বাস এই গ্রামে। জনসংখ্যা ৪৭৬। গ্রামে মহিলা এবং পুরুষের অনুপাত প্রায় সমান। ২৪০ জন মহিলা এবং পুরুষ ২৩৬ জন।
মূলত এই গ্রামের মহিলা বাহিনীর তৎপরতাতেই এমনটা হওয়া সম্ভব হয়েছে।
করোনা সংক্রমণ আটকাতে কোনও বহিরাগতকে এই গ্রামে ঢুকতে দেন না তারা। নিজেরাও সচরাচর গ্রাম ছেড়ে বার হন না।
নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের জন্য গ্রামের মহিলারা দু’জন যুবককে নিয়োগ করেছেন। ওই দু’জনই প্রয়োজন জেনে নিয়ে গ্রামের বাইরে গিয়ে সেগুলিকে নিয়ে আসেন এবং বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেন।
বেতুলের এই গ্রামে প্রবেশের মূল রাস্তা বাঁশের বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দিয়েছেন মহিলারা।
গ্রামের মহিলারা নিজেদের মধ্যেই দিনের ২৪ ঘণ্টা সময় ভাগ করে নিয়েছেন পাহারা দেওয়ার জন্য। রীতিমতো লাঠি হাতে পাহাড়া দেন তারা।
বিনা প্রয়োজনে কাউকে রাস্তায় ঘুরতে দেখলে প্রয়োজনে লাঠির ঘায়ে রাস্তা ফাঁকা করতেও পিছপা হন না তারা।
দেশে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা সাড়ে ৩ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। দৈনিক কোভিড আক্রান্তের সংখ্যাও প্রায় ৪ লক্ষ।
অথচ এই অতিমারি পরিস্থিতিতেও এই গ্রামকে এখনও ছুঁতে পারেনি কোভিড ১৯।
এত দিন চিখালার কুখ্যাত ছিল দেশি মদের জন্য। বাড়ি বাড়ি বেআইনি দেশি মদ তৈরি করেই মূলত দিনযাপন করতেন গ্রামবাসীরা। আর এখন মহিলাদের এই উদ্যোগে সারা দেশের কাছে উদাহরণ হয়ে উঠেছে এই গ্রাম।