ঢাকা, মঙ্গলবার ১৫, জুন ২০২১ ০:২৭:১৪ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
আজ পহেলা আষাঢ়, প্রিয় ঋতু বর্ষা শুরু করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় ৫৪ জনের মৃত্যু করোনায় যশোরে নতুন আক্রান্ত ৯০, মৃত্যু ৩ রাজশাহীতে করোনায় আরও ১২ জনের মৃত্যু সারাদেশে তিন দিন গ্যাস সংকট থাকবে

স্ত্রীকে ভারতে পাচার করে দেয়া সেই স্বামী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১২:৫৪ পিএম, ৯ জুন ২০২১ বুধবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

তিন মাস বন্দিদশায় নির্যাতন সহ্য করে মাসখানেক আগে ভারত থেকে পালিয়ে দেশে ফেরা তরুণীকে পাচার করার সাথে জড়িত এক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে হাতিরঝিল থানা পুলিশ। গতকাল (৮ জুন) মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা জেলার সীমান্তবর্তী ধাবকপাড়া কালিয়ানী এলাকা থেকে সেই তরুণীর স্বামী আকবর আলীকে (৫৫) গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রেম করে তিন বছর আগে বিয়ে করে স্বামীর সঙ্গে শনিরআখড়ায় থাকতে শুরু করেন ওই তরুণী। সংসারে আর্থিক অবস্থা ভালো না থাকায় স্বামী তাকে বিদেশে যাওয়ার কথা বলে। ওই তরুণী রাজি হলে স্বামী তাকে তুলে দেন পাচারকারীর হাতে। এরপর সাতক্ষীরা, কলকাতা হয়ে তাকে ভারতের চেন্নাইয়ে বিক্রি করে দেওয়া হয়। সেখানে চলে অমানবিক নির্যাতন।

সম্প্রতি ওই তরুণী পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে পাচারকারী চক্রসহ তার স্বামীর বিচার দাবি করেন। তার মতো এমন অনেক নারীই এখন নির্যাতনের বিষয় তুলে ধরে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। গত মাসের শেষ দিকে ভারতে বাংলাদেশি এক তরুণীকে যৌন নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হয়। এরপরই নারী পাচার চক্রের সন্ধানে নামে পুলিশ। এর মধ্যে নারী পাচারে যুক্ত নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নির্যাতনের শিকার ওই তরুণীকে কিভাবে পাচার করা হয়েছে তার একটি অডিও পাওয়া গেছে। যেখানে তিনি বলেন, তিন বছর আগে প্রেম করে বিয়ে করার পর স্বামীর সঙ্গে শনিরআখড়ায় থাকতে শুরু করেন। কিন্তু সংসারে অভাব থাকায় স্বামী তাকে গার্মেন্টেসে চাকরি করতে বলেন। কিন্তু তিনি পোশাকশ্রমিকের কাজ করতে রাজি হননি। পরে স্বামী তাকে বিদেশে যাওয়ার কথা বলেন। যেখানে দু-তিন মাস কাজ করলে আয় ভালো হবে। এরপর তারা ওই টাকা দিয়ে ব্যবসা করবেন।

প্রথমে এমন প্রস্তাবে রাজি না হলেও পরে রাজি হন। এরপর স্বামী তাকে এক মেয়ের হাতে তুলে দেন। সেই মেয়ে তাকে সাতক্ষীরা দিয়ে সীমান্ত পার করে তারা কলকাতায় নিয়ে যায়। সেখানে একটি ঘরে রাখা হয়। এরপর তাকে ভারতের পরিচয়পত্র বানিয়ে বিমানে করে চেন্নাই নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে একটি ঘরে তাকে আটকে রাখা হয়। এরপর চলতে থাকে শারীরিক অত্যাচার। তিনি কান্নাকাটি করলে মারধর করে বলা হয়, তাকে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে।

-জেডসি