ঢাকা, সোমবার ০১, মার্চ ২০২১ ১০:৪৮:৩২ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
করোনা: নতুন মৃত্যু ৮, শনাক্ত ৩৮৫ শিক্ষার প্রসারে বিত্তবানদেরও এগিয়ে আসতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ওষুধ ছিটিয়েও রাজধানীতে কমছে না মশার উৎপাত নেশার টাকা না পেয়ে মাকে হত্যা করলো মেয়ে জনসনের এক ডোজের টিকার অনুমোদন যুক্তরাষ্ট্রের

ফুঁসে উঠেছে ইন্দোনেশিয়ার মাউন্ট সেমেরু আগ্নেয়গিরি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০১:৩১ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০২১ সোমবার

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট

ইন্দোনেশিয়ার মাউন্ট সেমেরু আগ্নেয়গিরিটি ভয়ঙ্করভাবে জেগে উঠেছে। আগ্নেয়গিরির জ্বালামুখ দিয়ে বের হয়ে আসা ছাই জাভা দ্বীপের আকাশে প্রায় সাড়ে পাঁচ কিলোমিটার এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। আকাশে প্রায় ৫ দশমিক ৬ কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত উঠে যায় আগ্নেয়গিরির ধোঁয়া। এতে স্থানীয় মানুষের মধ্যে প্রবল আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সময় শনিবার ১৭টা ২৪ মিনিটে মাউন্ট সেমেরুর জ্বালামুখ দিয়ে ধোঁয়া বের হওয়া শুরু হয়। আগ্নেয়গিরি জেগে উঠার পর এখনো কোনো মৃত্যুর খবর মেলেনি। তবে কর্তৃপক্ষ স্থানীয়দের সতর্ক করে বলেছে, অগ্ন্যুৎপাতের আশঙ্কা রয়েছে।

এমনকি নেমে আসতে পারে লাভাস্রোতও। কুরাহ কোবোকান নদী অববাহিকার বাসিন্দাদের সম্ভাব্য কোল্ড লাভা কাদা প্রবাহের দিকে নজর রাখার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। আগ্নেয়গিরি থেকে বেরিয়ে আসা লাভার সঙ্গে প্রচণ্ড বৃষ্টিপাত মিলে ওই কাদার প্রবাহের সৃষ্টি হয়। অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া নানা ছবিতে ১২ হাজার ৬০ ফুট উঁচু পাহাড়ের জ্বালামুখ থেকে বেরিয়ে আসা ছাইয়ে বাড়ি ঘর ঢেকে যেতে দেখা যাচ্ছে।

ইন্দোনেশিয়া প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের রিং অব ফায়ার এ অবস্থিত। যে কারণে দেশটিতে মাঝেমধ্যেই নানা সক্রিয় আগ্নেয়গিরি জেগে উঠে। একই কারণে দেশটি বেশ ভূমিকম্প প্রবণ। শুক্রবার সুলাওয়েসি দ্বীপে ৬.২ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প হয়। যাতে বাড়িঘর ধসে এ পর্যন্ত ৮৩ জনের মৃত্যু হয়। এখনো উদ্ধার কাজ চলতে থাকায় মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শক্তিশালী ওই ভূমিকম্পের আগে ও পরে বেশ কয়েকটি পরাঘাত অনুভূত হয়। ভূমিকম্পের একদিন পরই মাউন্ট সেমেরু থেকে উদগীরণ শুরু হয়। সেমেরু দ্য গ্রেট মাউন্টেইন নামেও পরিচিত। এটি জাভা দ্বীপের সর্বোচ্চ এবং সবচেয়ে বেশি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি। পাহাড়টি ইন্দোনেশিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্রগুলোর একটি বটে। সারা বিশ্ব থেকে প্রতি বছর অসংখ্য মানুষ এই পাহাড়ে বেড়াতে আসেন। এর আগে গত ডিসেম্বরে মাউন্ট সেমেরু থেকে উদগিরণ হয়েছিল। সেবার প্রায় সাড়ে পাঁচশ বাসিন্দাকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছিল। সূত্র : রয়টার্স।

-জেডসি