ঢাকা, শনিবার ১৫, আগস্ট ২০২০ ২২:৫২:৪৮ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
দেশে করোনায় আরও ৩৪ মৃত্যু, শনাক্ত ২৬৪৪ বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের ৪৫ বছর: এখনও পলাতক ৫ খুনি বনানীতে শহীদদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা শ্রদ্ধাভরে পালিত হচ্ছে জাতীয় শোক দিবস চিত্রশিল্পী মুর্তজা বশীর আর নেই আজ ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস

পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে চার গ্রহাণু, নাসার সতর্কতা!

ডেস্ক রিপোর্ট | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১০:১৩ এএম, ২৪ জুলাই ২০২০ শুক্রবার

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট

নানা সময়ে পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে গ্রহাণু। কোনোটির ক্ষতিকর দিক বেশি বা কম থাকে, আবার অনেক গ্রহাণু পৃথিবীর পাশ কেটে চলে যায়। তেমনি ২১ জুলাই পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে উড়ে গিয়েছিল একটি গ্রহাণু। এবার একইসঙ্গে পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে চারটি গ্রহাণু। তাই সতর্কতা জারি করেছে নাসা।

নাসা সতর্কতা জারি করে বলেছে, পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে একাধিক গ্রহাণু। একটি নয়, একইসঙ্গে চারটি গ্রহাণু পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে উড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। এ যাত্রার ফল কী হবে, তা এখনো বিজ্ঞানীদের অজানা। সেই কারণেই তারা মনে করছেন, এখন থেকে সতর্ক হওয়াই উত্তম।

২২ জুলাই একটি ৪৯ ফুট দৈর্ঘ্যের গ্রহাণু পৃথিবীর পাশ দিয়ে উড়ে গেছে বলে জানিয়েছে নাসা। শুধু তাই নয়, এর আগে নাসা জানায়, ২১ জুলাইও পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে একটি গ্রহাণু উড়ে গিয়েছে। সেক্ষেত্রে পৃথিবীর কোনো উল্লেখযোগ্য ক্ষতি হয়নি। এখন মোট চারটি ভিন্ন গ্রহাণু পৃথিবীর খুব কাছ দিয়ে উড়ে যাবে বলে জানালো নাসা।

এর পাশাপাশি সাও পাওলো স্টেট ইউনিভার্সিটির গবেষকেরা বলছে, কমপক্ষে ১৯ টি আলাদা গ্রহাণুর সন্ধান পেয়েছেন তারা। যেগুলো বৃহস্পতি ও নেপচুনের মধ্যে আপাতত রয়েছে। কিন্তু সৌরজগতে তাদের গতিপথের ভিন্নতার কারণেই সেগুলো আলাদা করে নজরে পড়েছে বিজ্ঞানীদের। মনে করা হচ্ছে, এগুলো সৌর জগতের বাইরের থেকে এসেছে।

বলা হচ্ছে, এগুলো অতিথি গ্রহাণু। বিজ্ঞানীরা জানান, এগুলো সংখ্যায় মাত্র ১৯টিই নাকি বৃহত্তর কোনো গ্রহাণু পরিবারের সদস্য এরা তা এখনো স্পষ্ট করে ধরা দেয়নি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, এগুলো ৪.৫ বিলিয়ন বছর আগে সূর্যের চারিদিকে ঘুরতে শুরু করেছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। তারপর এদের অবস্থান বদল হয়েছে। তবে কেন এই গ্রহাণুগুলোর গতিপথের বদল হয়েছে, সেটা এখনো স্পষ্ট করে বলতে পারছেন না বিজ্ঞানীরা। এগুলোর নিজেদের মাধ্যাকর্ষণ শক্তি বা অন্য কোনো কারণে বদল আসতে পারে। তবে সৌরমণ্ডলে স্থায়ীত্ব ও ভারসাম্য বজায় রাখার ক্ষেত্রে এগুলো যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলে ধরে নেয়া হচ্ছে।সূত্র- নিউজ ১৮

-জেডসি