ঢাকা, বুধবার ০৩, জুন ২০২০ ২:১২:৫৭ এএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
ঢাবি শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিমার আওতায় আসছেন স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কর্মস্থলে আসতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়াল গ্লোবাল ভ্যাকসিন সামিটে যোগ দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী করোনা: দেশে আরও ৩৭ মৃত্যু, শনাক্তে রেকর্ড ২৯১১ কোভিড-১৯ দুর্বল হয়নি, এখনো শক্তিশালী: হু

সাক্ষাৎকার নিয়ে ভাবছেন!

চাকরি ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪.কম

আপডেট: ০৭:৩৩ পিএম, ৮ জানুয়ারি ২০১৮ সোমবার

চাকরির ইন্টারভিউ বা সাক্ষাৎকার নিয়ে ভাবছেন? কি ধরনের প্রশ্ন করার হবে, কিংবা কি জানতে চাইবে আপনার কাছে! জেনে নিন কিছু বিষয়।


প্রশ্নের ধরন সম্পর্কে অনুমান

চাকরি প্রার্থী নিজেই ধারণা করে নিতে পারেন যে ইন্টারভিউতে কী কী জিজ্ঞেস করা হতে পারে। ধারণা করা যায়, খুব সাধারণ কয়েকটি প্রশ্ন হতে পারে- কেন আপনি এ চাকরি করতে চান? এ পর্যন্ত কোন কঠিন সমস্যাটি আপনি সমাধান করতে পেরেছেন বলে মনে হয়? এ ধরনের অন্তত ২০টি প্রশ্ন খাতায় লিপিবদ্ধ করতে হবে।

উত্তর কী হতে পারে তার পরিকল্পনা

যে প্রশ্নগুলো খাতায় লিপিবদ্ধ করা হয়েছে তার উত্তর কী হতে পারে সেগুলোও লিখে ফেলতে হবে। এ ধরনের উত্তর লিখে রাখা খুব যন্ত্রণার ও হতাশাজনক হলেও সেগুলো লিখে রাখার সময় উত্তরগুলো মানুষের মস্তিষ্কে গেঁথে যায়। আর তা হলে ইন্টারভিউ বোর্ডে খুব স্বতঃস্ফূর্তভাবে উত্তর দেয়া সম্ভব হবে। সন্তোষজনক উত্তর দিতে পারলেই আপনার বুদ্ধিমত্তা সম্পর্কে একটি ইতিবাচক ধারণা জন্মাবে প্রশ্নকর্তার মনে।

ব্যাক আপ পরিকল্পনা রাখা

প্রত্যেকটি প্রশ্নের জন্য ভিন্ন এবং ভালো ও মানানসই তিনটি উত্তর লিখে ফেলা প্রয়োজন। কারণ প্রথম ইন্টারভিউ গ্রহণকারীর কাছে উত্তরটি ভালো নাও লাগতে পারে। পরের ইন্টারভিউ গ্রহণকারী ভিন্ন একটি উত্তর আশা করতে পারে। তবে আপনার সব উত্তরই যে গ্রহণযোগ্য হবে তা কিন্তু নয়। অপেক্ষাকৃত বেশি গ্রহণযোগ্য উত্তরই তারা পছন্দ করতে পারেন।

নিজেকে প্রমাণ করুন

আপনার আত্মবিশ্বাসই আপনাকে সঠিক লক্ষ্যে পৌঁছে দেবে। এজন্য সব প্রশ্নের উত্তরের মধ্যেই নিজেকে প্রমাণ করতে হবে যে ‘আমি পারি’। যেমন- হয়তো প্রশ্ন করা হল, কীভাবে আপনি নেতৃত্ব দেবেন? তখন বলা যেতে পারে, ‘আমি এমনভাবে সমন্বয় এবং সমস্যার নিষ্পত্তি করতে পারি যা একজন নেতার করা উচিত।’

পুরো পরিবেশ পর্যবেক্ষণ করা

শুধু প্রশ্নের উত্তর দিলেই হবে না, ইন্টারভিউয়ের সময় পুরো পরিবেশ ও ইন্টারভিউ গ্রহণকারীদের পর্যবেক্ষণ করতে হবে। তাদের বাচনভঙ্গি কেমন? তারা কী ক্লান্ত? তারা কী উত্তরগুলো ভালোভাবে নিচ্ছেন? এসব বিষয় খেয়াল রেখে এগুতে হবে।

বার বার অনুশীলন

ইন্টারভিউতে কীভাবে অংশ নিতে হবে সে ব্যাপারে আগে থেকেই অনুশীলন করতে হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত না উত্তরগুলো চিন্তা করা ছাড়াই বলে দেয়া যাচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত অনুশীলন করে যেতে হবে। প্রয়োজনে লজ্জা ভুলে সবার সামনে উচ্চস্বরে অনুশীলন করা যেতে পারে।

লাজলো বকের মতে, এ ছয়টি পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারলে চাকরি অবশ্যম্ভাবী। তো এখনই অনুশীলন শুরু করুন। আপনার ঐকান্তিক অধ্যাবসায়েই জুটে যেতে পারে চাকরি নামের সোনার হরিণটি। অবসান হবে দীর্ঘদিনের স্বপ্নের।

সূত্র: দৈনিক যুগান্তর