ঢাকা, শনিবার ২৩, অক্টোবর ২০২১ ১৪:০৯:০৩ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
মণ্ডপে হামলার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে গণঅনশন ট্রেনে কাটা পড়ে ছেলেসহ বাবা-মা নিহত যুক্তরাজ্যে নতুন বিপদ ‘ডেল্টা প্লাস’ ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনা উপসর্গে ৩ জনের মৃত্যু রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ফের অনশনে বিএফইউজে নির্বাচনের ভোট শুরু বিশ্বজুড়ে বেড়েছে সংক্রমণ, কমেছে মৃত্যু

স্ত্রীকে আটকে রেখে সন্তানকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যাচেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৮:৪৪ পিএম, ১১ অক্টোবর ২০২১ সোমবার

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

স্ত্রীকে আটকে রেখে দুই মাসের সন্তানকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে স্বামী আরাফাতুল ইসলাম মোর্শেদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
সোমবার দুপুরে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম শফি উদ্দিনের আদালতে মামলাটি করেন মোর্শেদের স্ত্রী নুরজাহান আক্তার কলি। মামলায় মোর্শেদের বাবা, মা, ভাই ও খালার বিরুদ্ধেও অভিযোগ আনা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, মা-বাবা কেউ নেই কলির। লোকজনের সহযোগিতায় খুলশী থানার লালখান বাজার মতিঝর্ণা এলাকার মোর্শেদের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই কলিকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতেন স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। একপর্যায়ে তার গর্ভে সন্তান এলে সেই সন্তানকে নষ্ট করে ফেলতে চান মোর্শেদ। এতে রাজি না হলে কলির ওপর শুরু করেন নির্যাতন। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে সামাজিকভাবে সালিশও হয়। সালিশে আর মারধর করবেন না বলে প্রতিশ্রুতি দেন মোর্শেদ।

চলতি বছরের ১০ জুলাই কলির গর্ভের সন্তান পৃথিবীতে এলে নির্যাতনের মাত্রা আরো বেড়ে যায়। একদিন কলিকে মারধর করে সন্তানসহ ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেন শাশুড়ি ও স্বামী মোর্শেদ। শুধু তাই নয়, তার গায়ে ও পায়ে ঢেলে দেন ভাতের মাড়।

গত ৫ অক্টোবর সন্তানের বয়স যখন প্রায় দুই মাস, আবারো শুরু হয় কলির ওপর স্বামী-শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যাতন। একপর্যায়ে কলিকে ঘরে তালাবদ্ধ করে রেখে সন্তানকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা করেন মোর্শেদ। ওই সময় কলির চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে ৯৯৯-এ ফোন করলে মোর্শেদ পালিয়ে যান। পরে আহত কলিকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ বলেন, আরাফাতুল ইসলাম মোর্শেদ দীর্ঘদিন ধরে বেকার। যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীর ওপর নির্যাতন চালাতেন তিনি। দিনে দিনে সেই নির্যাতনের মাত্রা বেড়ে গেলে আদালতে মামলা করেন ভুক্তভোগী নুরজাহান আক্তার কলি। মামলাটি আমলে নিয়ে দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে খুলশী থানাকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।