ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২২, এপ্রিল ২০২১ ১৮:০৬:৩৬ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃতের সংখ্যা ৯৮ স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণেই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী দেশে পুরুষের চেয়ে নারীর গড় আয়ু বেশি ১১ কোটি টাকা প্রণোদনা পাচ্ছেন ২৬৭৯ নার্স ভারতে একদিনে ৩ লাখ ১৬ হাজার শনাক্তে ফের বিশ্ব রেকর্ড বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ৩০ লাখ ৭১ হাজার

চলন্ত ট্রেনে ছিনতাইকারীর থাবা: মা পড়লেন নিচে, ট্রেনে শিশুসন্তান

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১২:০৫ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বৃহস্পতিবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আন্তঃনগর মহানগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি ভৈরব স্টেশনে যাত্রাবিরতি দেয় বুধবার রাত পৌনে নয়টায়। ছয় বছরের শিশুসন্তানকে নিয়ে ভৈরব স্টেশন থেকে ট্রেনের আরোহী হন এক নারী। পাঁচ মিনিট পর ট্রেনটি স্টেশন ছেড়ে যায়।

হাতে ব্যাগ ও সন্তান নিয়ে ভিড় ঠেলে তখনও ওই নারী কামরার ভেতরে পৌঁছাতে পারেননি। আর প্ল্যাটফর্ম থেকে মাত্র প্রায় ১০০ গজ সামনে যেতেই ব্যাগটি ধরে এক ছিনতাইকারী দেয় টান। ফলে চলন্ত ট্রেন থেকে নারী ছিটকে লাইনের পাশে পড়ে গুরুতর আহত হন। মা ছিটকে পড়লেও শিশুটি তখন ট্রেনের ভেতরেই রয়ে যায়। আর ট্রেন চলে যায় ঢাকার গন্তব্যে।

স্থানীয় লোকজন মুমূর্ষু অবস্থায় নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহত নারীর আনুমানিক বয়স ৪০ বছর।

ভৈরবের শেখ হানিফ নামের এক তরুণ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের একজন। তিনি ট্রেনটির যাত্রী ছিলেন। তিনি বলেন, ট্রেনটি তখন ধীরগতিতেই চলছিল। একজন ছিনতাইকারী ব্যাগটি ধরে টান দিতেই ওই নারীর পড়ে যান। পরে আমরা শিশুটিকে সঙ্গে রাখি এবং ঘটনাটি ভৈরবের কয়েকজন জানিয়ে ছিটকে পড়া নারীকে সহযোগিতার অনুরোধ জানাই।

রেললাইনের পাশে পড়ে থাকতে দেখে যে কয়েকজন স্থানীয় ব্যক্তি আহত নারীকে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পর্যন্ত নিয়ে আসেন, তাঁদের মধ্যে শহীদুল আলম একজন। তিনি জানান, লাইন থেকে ওই নারী অন্তত দুই গজ দূরে পড়ে ছিলেন। তখন জ্ঞান ছিল না। পরে তাঁরা হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার পর চিকিৎসা দেন জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আবদুল্লাহ আল নোমান ভূইয়া। তিনি বলেন, ওই নারী মাথায় আঘাত পেয়েছেন। ভেতরে রক্তক্ষরণ হচ্ছিল এবং বমিও করেছে। সব মিলিয়ে আহত নারীর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এদিকে ট্রেনটি বিমানবন্দর স্টেশন পৌছালে শিশুটি বিমানবন্দর রেলওয়ে পুলিশ হেফাজতে নেয়। এসময় শিশুটি পুলিশকে জানায়, তার নাম মেরাজ। বাবা মিলন মিয়া। বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার চান্দুপুর গ্রামে। নিজের ও বাবার নাম বলতে পারলেও শিশুটি মায়ের নাম জানাতে পারেনি।


-জেডসি