ঢাকা, শুক্রবার ১৪, জুন ২০২৪ ১২:৩৮:৫০ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
ঈদযাত্রায় ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি ঈদযাত্রায় বাস টার্মিনালে উপচে পড়া ভিড় যে কারণে ছুটির দিনেও ব্যাংক খোলা আজ ফের দি‌ল্লি সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু যুদ্ধের কারণে ১২ কোটি মানুষ ঘরছাড়া: জাতিসংঘ

শিক্ষাবিদ ফাহমিদা খাতুনের জন্মদিন আজ

অনলাইন ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৩:১৫ পিএম, ২৪ মে ২০২৪ শুক্রবার

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী ফাহমিদা খাতুন

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী ফাহমিদা খাতুন

দেশের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী ফাহমিদা খাতুনের জন্মদিন আজ ২৪ মে। ফাহমিদা খাতুনের জন্ম ১৯৪২ সালের ২৪ মে ঢাকায়। তার ডাক নাম লীনু। আদি পিতৃভূমি ফরিদপুরে। ফাহমিদা খাতুন পড়াশোনা করেছেন কামরুন্নেসা গার্লস হাই স্কুলে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্পন্ন করেছেন বিএসসি অনার্স ও এমএসসি। পেশাগত জীবনে তিনি শিক্ষকতা করেছেন ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে। 

পিতা কাজী মোতাহার হোসেন একজন প্রখ্যাত পরিসংখ্যানবিদ, বিজ্ঞানী এবং বাংলাদেশের জাতীয় অধ্যাপক। মায়ের নাম সাজেদা খাতুন। তাঁর বড় বোন ড. সনজীদা খাতুন ও ছোট বোন মাহমুদা খাতুন দুজনেই রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী। 

বড় ভাই কাজী আনোয়ার হোসেন বিখ্যাত 'মাসুদ রানা' সিরিজের লেখক ও ছোট ভাই কাজী মাহবুব হোসেন। ভাইবোন সবাই নিজ নিজ ক্ষেত্রে ব্যক্তিগত জীবনে প্রতিষ্ঠিত ছিলেন। 

পারিবারিক পরিবেশে সাহিত্য সংস্কৃতি চর্চা ছিল তাই ফাহমিদা খাতুন শৈশবে নাচের চর্চা করতেন। পরে সঙ্গীত চর্চা শুরু করেন। তিনি নিজ বাড়িতেই শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের তালিম নেন। 

ফাহমিদা খাতুন ওস্তাদ মুনির হোসেনের কাছে শাস্ত্রীয় সঙ্গীত এবং বড় বোন ড. সনজীদা খাতুন, কলিম শরাফী ও আবদুল আহাদের কাছে রবীন্দ্রসঙ্গীতের নিরলসভাবে তালিম নিয়ে নিজকে শানিত করে তুলেন।

১৯৫৬ সালে শিল্পী ফাহমিদা খাতুন নৃত্য নাট্য 'চন্ডালিকা'য় মা চরিত্রের জন্য কণ্ঠ দেন। তিনি ১৯৬৪ সালে ধারাপাত চলচ্চিত্রে 'আমি তোমার সঙ্গে বেঁধেছি আমার প্রাণ' গানে নেপথ্য কণ্ঠদান করেছেন।

ফাহমিদা খাতুন ১৯৬৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান টেলিভিশনের উদ্বোধনের দ্বিতীয় দিন টেলিভিশনের পর্দায় জাহেদুর রহিমের সাথে যৌথভাবে রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশন করেন 'তরী আমার হঠাৎ ডুবে যায়'।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ চলাকালীন 'স্বার্থক জনম আমার' ও 'আমার সোনার বাংলা' গান তাঁকে গণমানুষের কাছে নিয়ে যায়। মুক্তিযোদ্ধারা এইসব গানে উজ্জীবিত হয়ে রণাঙ্গনে সাহসিকতার সাথে শত্রুর মুখোমুখি লড়াই করে। 

১৯৭১ সালে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে তাঁর কণ্ঠে 'আজি বাংলাদেশের হৃদয় হতে' গানটি বাজানো হতো। যা সারা দেশ জাতিকে মুক্তিযুদ্ধের সময় উজ্জীবিত করতো। 

ফাহমিদা খাতুন অ্যালবাম এর প্রতি বেশি আগ্রহী ছিলেন না, তবুও তার প্রকাশিত অ্যালবামসমুহ - 'মোর অনেক দূরের মিতা' এবং 'মন আমার প্রবাসী পাখি' উল্লেখযোগ্য। 
ফাহমিদা খাতুন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দ সৈনিক। রবীন্দ্রসঙ্গীতে বিশেষ  অবদানের জন্য তিনি ভূষিত হয়েছেন বাংলা একাডেমির রবীন্দ্র পুরস্কারে।

এছাড়াও শিল্পী ফাহমিদা খাতুন সঙ্গীতে অবদান রাখায় লাভ করেছেন সিকোয়েন্স পুরস্কার, জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদের সম্মাননা, কবি মাহবুবুল আলম চৌধুরী স্মৃতি সম্মাননা।

এছাড়া আরও অর্জন করেছেন রবীন্দ্রনাথের জন্ম সার্ধশতবর্ষে ভারতের রবিতীর্থের সম্মাননা, বাংলা একাডেমির রবীন্দ্র পুরস্কার। 

শিল্পী ফাহমিদা খাতুন আরও অর্জন করেছেন রবি-চ্যানেল আই রবীন্দ্রমেলা আজীবন সম্মাননা, শিল্পকলা পুরস্কার, মেরিল-প্রথম আলো আজীবন সম্মাননা পুরস্কার ২০১৫ এবং অনন্যা শীর্ষ দশ পুরস্কার।

বর্তমানে শিল্পী ফাহমিদা খাতুন সপরিবারে তিনি বসবাস করছেন ময়মনসিংহ শহরে। আজকের এই জন্মদিনে শিল্পী ফাহমিদা খাতুনকে অনেক অনেক অভিনন্দন শুভেচ্ছা ও শুভকামনা এবং শ্রদ্ধা রইলো।