ঢাকা, শুক্রবার ০৫, জুন ২০২০ ১২:০৫:৫৭ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
করোনায় আরেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের মৃত্যু করোনায় মৃত্যু তিন লাখ ৯৩ হাজার ছাড়ালো করোনা: মৃত্যুতে ইতালিকেও পেছনে ফেলল ব্রাজিল সুন্দরবন বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে: টিআইবি কোভিড-১৯ মোকাবেলায় দ্রুত টিকা উদ্ভাবনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর রাজশাহী থেকে ঢাকায় আম আনতে কাল থেকে বিশেষ ট্রেন

৫ মে পর্যন্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১০:২৩ এএম, ২৪ এপ্রিল ২০২০ শুক্রবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাস মোকাবিলায় পঞ্চম দফায় বাড়ানো হয়েছে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি। এ দফায় ১৮ মন্ত্রণালয়-বিভাগ খোলা থাকলেও আগামী ৫ মে পর্যন্ত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এর আগে বৈশ্বিক মহামারি এ ভাইরাসের সংক্রমণ যেন ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য গত ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত প্রথম দফায় ছুটি ঘোষণা করা হয়। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে পরে এই ছুটি বাড়িয়ে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত করা হয়।

এরপর ১৪ এপ্রিল এবং সর্বশেষ চতুর্থ দফায় ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়। এবার পরিস্থিতি বিবেচনায় পঞ্চম দফায় ছুটি বাড়ানো হল।

বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। এ নিয়ে করোনার কারণে দেশে টানা ৪১ দিন ছুটি থাকবে।

সাধারণ ছুটির সময়ে সীমিত পরিসরে খোলা থাকবে সরকারের ১৮টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ। এছাড়া খোলা থাকবে জরুরি কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত অফিসগুলোও।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত এক অফিস আদেশে বলা হয়েছে, সাধারণ ছুটিকালীন ঢাকাসহ সব বিভাগ এবং জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ১৮টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ এবং এর অধীন দফতরগুলো সীমিত পরিসরে খোলা রাখতে বলা হয়েছে।

মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো হলো- প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, কৃষি মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ, জননিরাপত্তা বিভাগ, সুরক্ষা সেবা বিভাগ, তথ্য মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগ, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়সহ দেশব্যাপী থাকা প্রশাসনকে সব মুহূর্তে জেগে থাকতে হয়। করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে আমাদের কাজ আরো বেড়ে গেছে।

এদিকে, অন্যান্য অনেক খাতও ছুটির আওতার বাইরে থাকবে।

যেসব খাত ছুটির আওতার বাইরে থাকবে তা হলো-

জরুরি পরিষেবা যেমন- বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস ও অন্যান্য জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরসমূহের (স্থলবন্দর, নদীবন্দর ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট সেবা এবং এ-সংশ্লিষ্ট সেবা কাজে নিয়োজিত যানবাহন ও কর্মীরা।

সড়ক ও নৌপথে সব প্রকার পণ্য পরিবহনের কাজে নিয়োজিত যানবাহন (ট্রাক, লরি, কার্গো ভেসেল প্রভৃতি) চলাচল অব্যাহত থাকবে।

কৃষিপণ্য, সার, কীটনাশক, খাদ্য, শিল্পপণ্য, রাষ্ট্রীয় প্রকল্পের মালামাল, কাঁচাবাজার, খাবার, ওষুধের দোকান, হাসপাতাল ও জরুরি সেবা এবং এসবের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মীদের ক্ষেত্রে এ ছুটি প্রযোজ্য হবে না।

চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত চিকিৎসক ও কর্মী এবং ওষুধসহ চিকিৎসা সরঞ্জমাদি বহনকারী যানবাহন ও কর্মী, গণমাধ্যমে (ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া) কর্মীরা এ ছুটির আওতা বর্হিভূত থাকবেন।

ওষুধশিল্প, উৎপাদন ও রফতানিমুখী শিল্পসহ সব কারখানা কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের নিরাপত্তা এবং স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করে চালু রাখতে পারবে।

অন্যদিকে, ছুটির সময় পুরোপুরি বন্ধ থাকছে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের বলেন, সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি মোতাবেক সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৫ মে পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি শেষ হলে পরিস্থিতি বিবেচনা করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি সমন্বয় করা হবে এবং তা পরে জানানো হবে।

-জেডসি