ঢাকা, সোমবার ১৪, জুন ২০২১ ২৩:৫৮:২৭ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
করোনা: দেশে ২৪ ঘণ্টায় ৫৪ জনের মৃত্যু মাত্র ৫০০ টাকার জন্য স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা! করোনায় যশোরে নতুন আক্রান্ত ৯০, মৃত্যু ৩ রাজশাহীতে করোনায় আরও ১২ জনের মৃত্যু সারাদেশে তিন দিন গ্যাস সংকট থাকবে পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টাকারী নাসির-অমিসহ আটক ৫

যাত্রীদের চাপে শিমুলিয়া থেকে ছাড়ল ফেরি

নিজস্ব প্রতিবেদক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ০৩:০৩ পিএম, ৮ মে ২০২১ শনিবার

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

দৌলতদিয়া-শিমুলিয়া-পাটুরিয়া ও বাংলাবাজার ফেরিঘাটে ঘরমুখী যেসব মানুষ আটকে পরেছেন তাদের বিশেষ বিবেচনায় পারাপারের ব্যবস্থা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। কুঞ্জলতা নামে একটি ফেরি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। ঘাটে রয়েছে যাত্রীদের প্রচণ্ড চাপ।

ঘাট কর্তৃপক্ষ বলছে, ফেরি বন্ধের নির্দেশ দেয়া হলেও ঘাটে যাত্রীদের প্রচণ্ড চাপ। ফলে যাত্রীদের রোষানলে পড়ে ফেরি চালাতে বাধ্য হচ্ছেন তারা।

এর আগে রাতে ফেরি বন্ধের সিদ্ধান্তের বিষয়টি জানতেন না অনেক যাত্রী। সকালে ঘাটে এসে ফেরি বন্ধের কথা শুনেই তাদের মাথায় হাত। যার ফলে ফেরিঘাটগুলোতে সকাল থেকেই ঘরমুখী মানুষের ঢল নেমেছে। এতে ঘাটে অপেক্ষারত যাত্রীদের ভোগান্তিও চরমে। লঙ্ঘিত হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধিও। হঠাৎ মধ্য রাতে বন্ধের ঘোষণা কেন আসলো এমন প্রশ্নও তুলেছেন অনেক যাত্রী।

শনিবার (৮ মে) সকাল থেকে ঘাট এলাকায় আসতে হতে শুরু করেন যাত্রীরা। এত মানুষের চাপে হিমশিম খেতে হচ্ছে ঘাট কর্তৃপক্ষকে। এর মধ্যেই কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন বিশেষ ব্যবস্থায় তাদের পারাপার করা হবে।

এদিকে সকাল থেকে ঘাট এলাকায় কোনো যানবাহন ঢুকতে দিচ্ছে না পুলিশ। ফলে কয়েক কিলোমিটার হেঁটেই ঘাটে যাচ্ছেন যাত্রীরা। ফেরি বন্ধ থাকার খবর শুনে নিরুপায় হয়ে ঘাটে অপেক্ষা করছেন অনেকেই। নিরুপায় হয়ে অনেকেই ফিরছেন রাজধানীতে।

এছাড়া এই নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার ঘরমুখো মানুষ। আজ সকাল থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীরা মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় ভিড় করছেন। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীর চাপও বাড়ছে। বিআইডব্লিউটিএ সকাল থেকে ঘাট এলাকায় মাইকিং করলেও যাত্রীরা ঘাট থেকে সরছেন না।  

শিমুলিয়া  ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক (টিআই) হিলাল উদ্দিন বলেন, গতকাল শুক্রবার রাত ৩টা থেকে শিমুলিয়া ঘাটে সব ধরনের ফেরি পারাপার বন্ধ আছে। ফেরি কুঞ্জলতা সকাল ৮টা ১০ মিনিটে মাদারীপুরের বাংলাবাজার ঘাট থেকে ৫টি অ্যাম্বুলেন্স, পুলিশের দুটি পিকআপভ্যান ও ৫ শতাধিক যাত্রী নিয়ে শিমুলিয়া ঘাটে আসে। ওই ফেরিতে যাত্রীরা ওঠেন। পরে ফেরিটি ঘাট এলাকায় সকাল ৮টা পর্যন্ত নোঙর করে রাখা হয়। এ সময় ফেরি বন্ধ থাকায় যাত্রীরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। যাত্রীদের রোষানলে পড়েন ঘাট কর্তৃপক্ষের লোকজন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের পরামর্শ অনুসারে সকাল ৯টা ১০ মিনিটের দিকে ফেরি কুঞ্জলতায় যাত্রীবোঝাই করে মাদারীপুর ঘাটে পাঠানো হয়। তবে এমন অবস্থা সারা দিন চলতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা করেন। তিনি বলেন, শিমুলিয়া ঘাটে এখনো ৪ শতাধিক ট্রাক ও পিকআপ ভ্যান এবং ৭টি অ্যাম্বুলেন্স পারাপারের অপেক্ষায় আছে। ব্যক্তিগত ছোট গাড়িও আছে। ১০ হাজারের বেশি যাত্রী ঘাটে পার হওয়ার জন্য জড়ো হয়েছেন।

-জেডসি