ঢাকা, শনিবার ২৩, অক্টোবর ২০২১ ১৫:১২:২৭ পিএম

First woman affairs online newspaper of Bangladesh : Since 2012

Equality for all
Amin Jewellers Ltd. Gold & Diamond
শিরোনাম
মণ্ডপে হামলার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে গণঅনশন ট্রেনে কাটা পড়ে ছেলেসহ বাবা-মা নিহত যুক্তরাজ্যে নতুন বিপদ ‘ডেল্টা প্লাস’ ময়মনসিংহ মেডিকেলে করোনা উপসর্গে ৩ জনের মৃত্যু রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ফের অনশনে বিএফইউজে নির্বাচনের ভোট শুরু বিশ্বজুড়ে বেড়েছে সংক্রমণ, কমেছে মৃত্যু

বিজেপির পদ হারালেন বরুণ ও তার মা মানেকা গান্ধী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | উইমেননিউজ২৪

প্রকাশিত : ১২:৫৪ পিএম, ৯ অক্টোবর ২০২১ শনিবার

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বিজেপি’র জাতীয় নির্বাহীর পদ থেকে বাদ পড়েছেন বরুণ গান্ধী এবং তার মা মানেকা গান্ধী। একইসঙ্গে হরিয়ানার সংসদ সদস্য রাও ইন্দ্রজিৎ সিংহ ও চৌধরি বীরেন্দ্র সিংহও বাদ পড়েছেন এ তালিকা থেকে। 

উত্তর প্রদেশের লাখিমপুর খিরিতে গাড়িচাপা দিয়ে কৃষক হত্যার ঘটনায় বরুণ টুইট করার পর এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যদিও বিজেপি বলছে, এ পরিবর্তন স্বাভাবিক।

গত রোববার উত্তর প্রদেশের লাখিমপুর খিরিতে কৃষকদের চাপা দেয় বিজেপির মন্ত্রী অজয় মিশ্রের গাড়ি। ওই সময় গাড়িতে অজয় মিশ্রের ছেলে আশিষ মিশ্র ছিলেন বলে ভিডিওতে দেখা গেছে। তবে তাকে এখনও জিজ্ঞাসাবাদ কিংবা গ্রেফতার করা হয়নি। বিজেপির একমাত্র নেতা হিসেবে এই ঘটনার সমালোচনা করেন বরুণ গান্ধী।

ওই ঘটনাকে খুন আখ্যা দিয়ে বরুণ গান্ধী জবাবদিহি দাবি করেন। মঙ্গলবার কৃষকদের পেছন দিয়ে চাপা দেওয়ার একটি ভিডিও তিনি পোস্ট করেন। তিনি বলেন, আত্মা কাঁপিয়ে দিতে যথেষ্ট।

বিজেপি সূত্রের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়, মূলত উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই জাতীয় নির্বাহীর নতুন তালিকা প্রকাশ করেছে বিজেপি। নতুন জাতীয় নির্বাহীর তালিকায় উত্তরপ্রদেশ থেকেই ১৩ জন সদস্য নেওয়া হয়েছে। সব মিলিয়ে উত্তরপ্রদেশের প্রতিনিধিদের সংখ্যাটি প্রায় ৪০-এর কাছাকাছি। 

বুধবার ওই ঘটনার আরেকটি পরিষ্কার ভিডিও টুইট করে বরুণ গান্ধী বলেন শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের পেছন দিয়ে চাপা দেওয়ার ‘ক্রিস্টাল ক্লিয়ার ভিডিও’। নিরীহ কৃষকদের রক্তের জবাবদিহি নিশ্চিতের আহ্বান জানান তিনি।

এছাড়াও উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে চিঠি দিয়ে ওই ঘটনায় সিবিআই তদন্ত এবং নিহত কৃষকদের পরিবারকে এক কোটি রুপি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আহ্বান জানান বরুণ গান্ধী।